আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ গভীর আর্থিক মন্দা ব্রিটেনে। প্রভাব পড়বে ভারতেও। মার খাবে রপ্তানি, ধারণা বিশেষজ্ঞদের। অতিমারীর ধাক্কায় গত ১১ বছরে এই প্রথমবার মন্দা পরিস্থিতি দেখল ব্রিটেনে। চলতি অর্থবর্ষের এপ্রিল–জুন ত্রৈমাসিকে সে দেশের অর্থনীতির বহর ২০% সঙ্কুচিত হয়েছে। চ্যান্সেলর রিশি সুনাক বলছেন, ‘‌আশঙ্কা সত্যি হল। ইতিমধ্যেই বহু মানুষের চাকরি গেছে। আরও যাবে!’‌ 
জুন থেকে কড়া লকডাউন উঠে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরু হওয়ায় ফের ঘুরে দাঁড়াচ্ছিল ব্রিটিশ অর্থনীতি। মে মাসের তুলনায় ওই মাসে মোট উৎপাদন ৮.‌৭% বেড়েছিল ঠিকই, কিন্তু ফেব্রুয়ারির হিসেবে তা এক ষষ্ঠাংশ। ব্রিটেনের অর্থনীতিতে মন্দার প্রভাব ইওরোপীয় অঞ্চলে তো পড়বেই, পাশাপাশি ভারতের অর্থনীতির কালো মেঘ আরও ঘনীভূত হবে। কারণ ব্রিটেন ভারতীয় পণ্যের বড় বাজার। পোশাক–পরিচ্ছদ, লোহা–স্টিলের পণ্য, যন্ত্রপাতি ও ওষুধপত্র ব্রিটেনে রপ্তানি করে ভারত। গত অর্থবর্ষেই প্রায় ৬৭ হাজার কোটি টাকার পণ্য ব্রিটেনে রপ্তানি করেছিল ভারত। হিসেব বলে, ব্রিটেন থেকে ভারত যা আমদানি করে, রপ্তানি তার দ্বিগুণ!‌ প্রতিবছরই দু’‌দেশের মধ্যে কম করে ১ লক্ষ ১২ হাজার কোটি টাকার বাণিজ্য হয়, যা বন্ধ হলে বড় আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়বে ভারত। 
শুধু ব্রিটেনই নয়, আশঙ্কা রয়েছে সিঙ্গাপুরের অর্থনীতি নিয়েই। চলতি অর্থবর্ষের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে অর্থনীতির বহর ৪২.‌৯% সঙ্কুচিত হওয়ায় সেখানেও মন্দা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে বিশেষজ্ঞদের মধ্যে। সিঙ্গাপুরও ভারতে উৎপাদিত পণ্যের বড় বাজার। দু’‌দেশের মধ্যে প্রতিবছর প্রায় ১ লক্ষ ৭২ হাজার কোটি টাকার বাণিজ্য হয়। এই বাণিজ্যও বন্ধ হলে দেশের ‘‌মরা’‌ অর্থনীতিতে খাড়ার ঘা এসে পড়বেই, দাবি একাংশের। 

জনপ্রিয়

Back To Top