আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ স্পাইডারম্যান। মার্ভেল কমিক্সের এক লার্জার দ্যান লাইফ চরিত্র। সদ্য কলেজ পাশ করে ডেইলি বিউগ্‌ল–এর চিত্র সাংবাদিকের চাকরিতে ঢোকা পিটার পার্কার এক্সক্লুসিভ ছবি না মেলার জন্য যখন কোম্পানির মালিক জোনা জেমসনের কাছে ভর্ৎসিত হয়। বা স্পাইডারম্যান রূপে নানান অসাধারণ কাজ করে, সেই কাহিনী পড়তে পড়তে পিটার যেন আজ সত্যিই হয়ে উঠেছে আমাদের ‘‌ফ্রেন্ডলি নেবার’।
কিন্তু কমিক্সের চরিত্র যদি বাস্তবিক হয়ে উঠে চোখের সামনে আসে। তখন সেটা কিন্তু ভীতিজনকই হয়ে দাঁড়ায়। যেমন হয়েছে চীনে। চীনের হিউনান প্রদেশের ইউয়ানজিয়াং শহরে এক ব্যক্তির বাড়ির বাগানের গাছে এক অদ্ভূত দর্শন মাকড়শার দেখা মিলেছে। লি নামের এক মহিলা অদ্ভূত দেখতে ওই মাকড়শাটির ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করতেই তা মুহূর্তে ভাইরাল হয়। মাকড়শাটির শরীরের পিছন দিকটি যেন অবিকল এক মানুষের মুখ। চওড়া কপাল, দুটি চোখ, ভুরু, নাক, ঠোঁট, দাঁত এবং কপালের পাশে চুলের মতো কালো রেখা সম্বলিত সেই মুখের ছবি দেখে লি তাঁর পোস্টে লিখেছেন, মনে হচ্ছে যেন মানুষের মুখ।
লি–এর তোলা মাকড়শার ওই ছবি চীনের সরকারি সংবাদমাধ্যম পিপলস্‌ ডেইলি প্রকাশ করে পাঠকদের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন করেছিল এই মাকড়শাটির প্রজাতির বিষয়ে কেউ জানেন কিনা। সোশ্যাল মিডিয়ায় অবশ্য স্পাইডারম্যানের ওই ছবি রীতিমতো ভীতির সঞ্চার করেছে। অনেকেই ভাবতে শুরু করেন এই ভয়ানক দর্শন মাকড়শা বিষাক্ত হতে পারে। তবে পরে রিচার্ড জে পিয়ার্স নামে এক প্রাণীবিজ্ঞানী ছবিটি দেখে নিজের টুইটার পোস্টে লেখেন, ওই মাকড়শাটি এব্রেশটেলা ট্রাইকাসপিডাটা প্রজাতির। নির্বিষ এবং থোমিসিড নামে পরিচিত প্রাণীজগতে। এদের শরীরের পিছনটা এমন দেখতে যে সেটা মানবমুখের ধাঁচ সৃষ্টি করে। এদের ভয় পাওয়া কিছু নেই বলেও আশ্বস্ত করেছেন রিচার্ড।
ছবি:‌ দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস মালয়ালাম    ‌

জনপ্রিয়

Back To Top