আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ মালিকের মৃত্যুশোকে মারা গেল পোষ্য। ঘটনাটি ঘটেছে স্কটল্যান্ডের অ্যালোয়া প্রদেশে। জানা গেছে ২০১১ সালে স্টুয়ার্ট হাচিসন (‌২৫)‌ নামে এক যুবকের ব্রেন টিউমার ধরা পড়ে। মালিক গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ায় সারাক্ষণ তাঁর পাশে থাকত পোষ্য সারমেয় নিরো। শেষপর্যন্ত ক্যান্সারের কাছে হার মানেন হাচিসন। মালিকের মৃত্যুর ১৫ মিনিটের মধ্যেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে পোষ্য নিরো। 
ঘটনার দিন হাচিসনের মৃতদেহের সামনে পরিবারের সবাই ছিলেন শোকাহত অবস্থায়। আচমকাই দেখা যায় নিরো নিস্তেজ হয়ে পড়েছে। কিছুক্ষণ পর সে মারা যায়।  
ক্যান্সার ধরা পড়ার এর একাধিক কেমোথেরাপি দিতে হয়েছে হাচিসনকে। প্রতিবারই হাচিসনের সামনে দেখা গেছে পোষ্য নিরোকে। এমনকি হাচিসনের স্ত্রীও নিরোর সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ কাটাতেন। হাচিসনের মা ফিওনা কোনাঘান এই ঘটনায় একেবারে বাকরুদ্ধ। তিনি বলেছেন, ‘‌দুপুর ১.‌১৫ নাগাদ মারা যায় ছেলে। ঠিক ১৫ মিনিট পর মারা যায় নিরো। আমাদের বাড়িতে তিনটি কুকুর ছিল। কিন্তু নিরো ছিল আমার ছেলের সবচেয়ে প্রিয়। সবসময় আমার ছেলের পাশে থাকত কুকুরটি। আমার পুত্রবধূও গোটা ঘটনায় ভেঙে পড়েছে।’‌ 
জানা গেছে মৃত্যুর চার সপ্তাহ আগে হাসপাতাল থেকে বাড়ি নিয়ে আসা হয়েছিল হাচিসনকে। শেষ ক’‌টা দিন পরিবারের সঙ্গে কাটাতে চেয়েছিল হাচিসন। স্ত্রী ড্যানিয়েলার কথায়, ‘‌২০১১ থেকে আমি ও হাচিসন একসঙ্গে কাটিয়েছি। সেবার মে মাসে স্পেন ঘুরতে গিয়েছিলাম। তখনই হাতে ব্যথা শুরু হয় হাচিসনের। পরীক্ষার পর কিছু ধরা পড়েনি। কিন্তু জুন মাসে দু’‌হাতেই ফের ব্যথা শুরু হয়। তারপর স্ক্যান হয়। ধরা পড়ে ব্রেন টিউমার।’‌  অবশেষে ২০১৯ সালের আগস্টে মারা গেলেন হাচিসন। 

জনপ্রিয়

Back To Top