আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ অবশেষে মুম্বই হামলার মূল চক্রী এবং জামাত প্রধান হাফিজ সইদকে গ্রেপ্তার করেছে পাকিস্তান। সামনেই ইমরান খানের মার্কিন সফর রয়েছে। তার আগে পাকিস্তানের এই পদক্ষেপ যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণই মনে করছে কূটনৈতিক মহল। এই পরিস্থিতিতে আবার ট্রাম্পও হাফিজের গ্রেপ্তারিতে পাকিস্তানের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন। টুইট করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। সবকিছু ঠিকঠাকই চলছিল। কিন্তু এর মধ্যেই ব্যাঘাত ঘটাল মার্কিন বিদেশমন্ত্রক। ট্রাম্পের টুইটের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে টুইটে বিদেশমন্ত্রকের মন্তব্য, পাকিস্তান কখনই সইদকে খুঁজছিল না। গত দশবছর ধরে সে তো দিব্যি ঘুরে বেড়াচ্ছিল। বিদেশমন্ত্রকের ওই কমিটি লেখে, ‘পাকিস্তান গত দশবছরে কখনই সইদকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করেনি। সে স্বাধীনভাবেই ঘুরে বেড়াচ্ছিল। ২০০১ সালের ডিসেম্বর, ২০০২ সালের মে, ওই বছরেরই অক্টোবর, ২০০৬ সালের আগস্ট (‌দু’‌বার), ২০০৮ সালের ডিসেম্বর, ২০০৯ সালের সেপ্টেম্বর এবং ২০১৭ সালের জানুয়ারি– সইদকে গ্রেপ্তার করা হলেও ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল। তাই তাঁকে দোষী ঘোষণা করার আগে আনন্দটা চেপে রাখা উচিত।’‌
এর আগে বুধবার লাহোর থেকে গুজরানওয়ালা যাওয়ার পথে তাকে গ্রেপ্তার করে পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের সন্ত্রাস দমন বিভাগ। গুজরানওয়ালার সন্ত্রাস দমন আদালতের নির্দেশে তাকে বিচারবিভাগীয় হেফাজতে লাহোরের কোট লাখপত জেলে রাখা হয়েছে। টাকা নয়ছয় এবং সন্ত্রাস সংক্রান্ত একাধিক অভিযোগে হাফিজের বিরুদ্ধে তদন্ত করছে সিটিডি। সইদের গ্রেপ্তারির পরই ট্রাম্প টুইট করেন, ‘‌দশ বছর খোঁজার পর, অবশেষে তথাকথিত মুম্বই হামলার ‘‌মূলচক্রী’‌ হাফিজ সইদকে গ্রেপ্তার করেছে পাকিস্তান। তাকে খোঁজার জন্য পাকিস্তানের উপর গত দু’‌বছরে প্রচুর চাপ সৃষ্টি করা হয়েছিল।’‌ মূলত ট্রাম্পের এই মন্তব্যেরই বিরোধিতা করল তাঁরই দেশের বিদেশমন্ত্রক।

জনপ্রিয়

Back To Top