আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ চীনের সমর্থন নিয়ে ভারতের কাশ্মীর সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করতে চেয়েছিল ইসলামাবাদ। কিন্তু বাস্তবে তা হয়নি। অর্থাৎ এভাবে প্রকাশ্যে প্রতিবাদে নামতে চায়নি চীন। ইতিমধ্যেই ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর তিন দিনের চীন সফরে গিয়েছেন রবিবার। তারই মধ্যে পাকিস্তান এখন এঁটে উঠতে না পেরে ভারতকে চীনের ভয দেখাবার কৌশল নিয়েছে। 
বিভিন্ন ইসলামিক দেশের কাছ থেকে সাড়া না এবার চীনের জুজু দেখাতে শুরু করল পাকিস্তান। কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপের প্রতিবাদে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদে যাওয়ার হুমকি দিল ইমরান খান সরকার। চীন আগেই জানিয়ে দিয়েছে আকসাই চীন নিয়ে মাথাব্যাথা থাকলেও কাশ্মীরের ব্যাপারে তাদের বলার কিছু নেই। তাতে খানিকটা পিছু হটতে হয়েছে ইসলামাবাদকে।
তাই নতুন কৌশল হিসাবে চীন থেকে ফিরে পাক বিদেশ মন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি বলেন, ‘‌কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপ নিয়ে চীনের সঙ্গে কথা হয়েছে। ইসলামাবাদ যে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদে যাচ্ছে তা বেজিংকে জানানো হয়েছে। এমনকী এই বিষয়ে চীনের সাহায্য চাওয়া হয়েছে।’‌ চীন এই বিষয়ে এখনও কোনও কথা দেয়নি ইমরান খানের সরকারকে। তারপরও কিসের ভিত্তিতে এই ভয় দেখানো হচ্ছে?‌ নিছকই চাপে রাখার কৌশল বলে মনে করা হচ্ছে। 
উল্লেখ্য, গত ৬ আগস্ট কাশ্মীর নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদে চিঠি লিখেছে পাকিস্তান। রাশিয়াও জানিয়ে দিয়েছে কাশ্মীরে ভারত যা করেছে তা তাদের সংবিধান মেনেই। 

জনপ্রিয়

Back To Top