আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ২০০৮ সালের পর ১২ বছরে প্রথমবার জাপান সফরে যাওয়ার কথা ছিল চীনের প্রেসিডেন্ট জিংপিংয়ের। প্রথমে তা এপ্রিল মাসে স্থির হলেও করোনা ভাইরাসের আবহে তা পিছিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু এবার তা পুরোপুরি বাতিল হওয়ার মুখে। ইতিমধ্যেই জিন পিংয়ের সফর নিয়ে চিন বিরোধী সুরে প্রতিবাদ শুরু হয়েছে শাসক দলের তরফে। জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের লিবারাল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির তরফে এ বিষয়ে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। আর তাই এই সফর বাতিল করার কথা ভাবছে টোকিও। অনেকদিন থেকেই চীন–জাপান সম্পর্ক অবনতির দিকে। তবে সম্প্রতি চীনের অনুমোদিত হংকংয়ের জাতীয় সুরক্ষা আইনের কারণে বিক্ষোভের পারদ আরও চড়ছে।
মনে করা হচ্ছে, সম্প্রতি পাস হওয়া চীনের সুরক্ষা আইন হংকংয়ে জাপানিদের এবং জাপানি কোম্পানিদের অধিকার খর্ব হতে চলেছে। করোনা ভাইরাসকে সামনে রেখে আক্রমনাত্মক কূটনীতি এবং হংকংয়ের উপর আরও ক্ষমতা কায়েম করার চেষ্টা চালানোর চেষ্টাও চালাচ্ছে চিন, যে কারণে চীনকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে জাপান। বর্তমানে হংকংয়ে ১৪০০ জাপানি কোম্পানির অস্তিত্ব রয়েছে এবং দীর্ঘদিন যাবত জাপান থেকে কৃষিজাত দ্রব্য সবচেয়ে বেশি পরিমাণ আমদানি করে আসছে হংকং। জাপানের ব্যাবসায়িক কমিউনিটি মনে করে করছে চীনের নতুন আইন হংকংয়ে তাঁদের দীর্ঘদিনের প্রতিষ্ঠানকে নাড়িয়ে দেবে। ব্যাপক পরিমাণে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে জাপান।চলতি সপ্তাহ থেকে লাগু হওয়া এই আইনের তীব্র নিন্দা জানিয়েছিল জাপান।

জনপ্রিয়

Back To Top