সংবাদ সংস্থা- প্রবল তাপপ্রবাহ চলছে আমেরিকার পূর্বাঞ্চলে। ঝলসে যাচ্ছে নিউ ইয়র্ক শহর এবং সংলগ্ন এলাকা। বাড়াবাড়ি হয়েছিল মঙ্গলবার। ম্যানহাটানের সেন্ট্রাল পার্কে পারদ চড়েছিল রেকর্ড ১০৩ ডিগ্রি ফারেনহাইট (‌৩৯.‌৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস)‌। আগের রেকর্ড ছিল ১৯৯৯ সালের ৬ জুলাই, ১০১ ডিগ্রি ফারেনহাইট। এবার পরিস্থিতি আরও অসহ্য করেছে আর্দ্রতা। ৫০ শতাংশেরও বেশি। আবহাওয়ার পূর্বাভাস, রবিবার নাগাদ প্রবল ঝড়বৃষ্টি হবে। তার পর ফের বাড়তে পারে তাপমাত্রা। অথচ গ্রীষ্ম বিদায় নেওয়ার সময় হয়ে গেছে। শেষ কদিন পার্কের ঘাসজমিতে, ফোয়ারার পাশে লোকে শুষে নিয়েছে রোদ। কিন্তু এবার হালত খারাপ। যঁাদের রাস্তায় থাকতে হচ্ছে, নিজেদের ঠান্ডা রাখতে তঁাদের প্রাণান্ত।
গরম হাওয়া কতটা নাজেহাল করছে অনভ্যস্ত মানুষজনকে, তার প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে চলতি নিউ ইয়র্ক ওপেন টেনিস টুর্নামেন্টের আসরে। মঙ্গলবার ৬ জন খেলোয়াড় প্রতিযোগিতা থেকে নাম তুলে নিয়েছেন। এঁরা এসেছিলেন ইতালি, লিথুয়ানিয়া, সার্বিয়া, রাশিয়া থেকে। পঁাচজন যে গরমের কারণেই প্রতিযোগিতা ছেড়ে দেশে ফিরে যাচ্ছেন, সেটা নিশ্চিত করেছে আমেরিকান টেনিস অ্যাসোসিয়েশন। এদের মধ্যে রাশিয়ার মিকায়েল ইয়ুঝনি খেলার মধ্যেই কোর্টে বার বার বসে পড়েন। গায়ে মাথায় বরফ ঠান্ডা জল ঢেলে, মাথায় আইস প্যাক চাপিয়ে তঁার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রাখতে হয়। যে সব খেলোয়াড় প্রতিযোগিতা ছেড়ে যাননি, তঁারাও ভরদুপুরে খেলা না রাখার আর্জি জানিয়েছেন। বলেছেন, এই প্রচণ্ড গরমে তঁাদের সক্ষমতা নষ্ট হচ্ছে, পারফরমেন্স খারাপ হয়ে যাচ্ছে। গ্যালারিতে দর্শকদেরও একই রকমের দুরবস্থা। অনেকেই ছাতা মাথায় খেলা দেখছেন, নিদেনপক্ষে জলে ভেজানো তোয়ালে চাপিয়ে রাখছেন মাথায়। গত দু’‌দিনে একাধিক দর্শক অসুস্থও হয়ে পড়েন। তঁাদের রীতিমতো চিকিৎসা করিয়ে ঠিক করতে হয়।  ‌

জনপ্রিয়

Back To Top