আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ নিরাপত্তাবাহিনীর হেপাজত থেকে জৈশ–ই–মহম্মদের প্রধান মাসুদ আজহারকে মুক্তি দিয়ে দিল পাকিস্তান সরকার। জম্মু–কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপের পর থেকেই সীমান্তে চাপা উত্তেজনা রয়েছে। তার মধ্যেই মাসুদের মুক্তির খবরে নিঃসন্দেহে ভারতের চিন্তা বাড়ল। কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপ করায় ভারতের উপর ক্ষিপ্ত পাকিস্তান ভারতে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের ছক কষতেই মাসুদকে এভাবে গোপনে মুক্তি দিয়েছে।
গোয়েন্দা বিভাগ সরকারকে সতর্ক করেছে রাজস্থানের কাছে সীমান্ত লাগোয়া অঞ্চলে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করেছে পাকিস্তান। গোয়েন্দাদের হুঁশিয়ারি, পাঞ্জাবের সিয়ালকোট, জম্মু এবং রাজস্থানে বড় হামলার ছক কষেছে পাকিস্তান। বিএসএফ–কে সেই সতর্কবার্তা পাঠিয়ে দেওয়াও হয়েছে। গোয়েন্দাদের অনুমান, সোপিয়ান এবং জম্মুর সেনাঘাঁটিগুলিতে হামলার তালাতে লস্কর জঙ্গিদের অনুপ্রবেশ করানোর চেষ্টা চালাচ্ছে পাকিস্তান। ধর্মীয় স্থানগুলিতে হামলার লক্ষ্য করতে পারে আইএসআই। দিন কয়েক আগেই নৌসেনা সতর্ক করেছিল কেন্দ্রকে যে, জলের তলায় সন্ত্রাসবাদী হামলা চালানোর জন্য কমান্ডোদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে জৈশ। 
পাকিস্তানের উপর থেকে চীন প্রযুক্তিগত সাহায্য তুলে নেওয়ার পর এবছরের মে মাসেই রাষ্ট্রপুঞ্জ মাসুদকে জঙ্গি আখ্যা দিয়েছিল। মাসুদকে জঙ্গি তালিকাভুক্ত করায় সায় দিয়েছিল ব্রিটেন এবং ফ্রান্সও। যার ফলে মাসুদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল। অস্ত্র কেনা এবং সফরে নিষেধাজ্ঞা আরোপিত হয়েছিল। কিছুটা আন্তর্জাতিক চাপে পড়েই মাসুদকে নিরাপত্তাবাহিনীর হেপাজতে নেয় পাকিস্তান। এর ফলে স্বভাবতই খুশি হয়েছিল ভারত।  সম্প্রতি ভারত ইউএপিএ–এর আওতায় মাসুদ, হাফিজ মহম্মদ সৈয়দ, জাকিউ রহমান লকভি এবং দাউদ ইব্রাহিমকে জঙ্গি ঘোষণা করেছে।             

জনপ্রিয়

Back To Top