আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ আমেরিকায় দু’‌শো বছরের বেশি গণতন্ত্রের ইতিহাসে যা হয়নি, এবার তা–ই হল। ক্ষমতার কেন্দ্রে এলেন একের পর এক মহিলা। নির্বাচনের আগে ভাইস প্রেসিডেন্ট হওয়ার দৌড়ে কমলা হ্যারিসকে মনোনীত করে ইতিহাস গড়েছিলেন জো বাইডেন। 
ক্ষমতায় এসেও একের পর এক চমক জারি রেখেছেন তিনি। আমেরিকায় কোষাধ্যক্ষ থেকে গোয়েন্দা বিভাগের প্রধানের পদে মনোনীত করেছেন মহিলাদের। এবার বাজেট চিফ পদেও মনোনীত করলেন এক ভারতীয় বংশোদ্ভুত মহিলাকে। 
সূত্রের খবর, হোয়াইট হাউসের ‘অফিস অব ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড বাজেট’–এর প্রধান হতে চলেছেন ভারতীয় বংশোদ্ভুত নীরা টান্ডেন। এখন তিনি সেন্টার ফর আমেরিকান প্রোগ্রেস–এর চিফ এগজিকিউটিভ। এই সংগঠন কিছুটা বাম ঘেঁষা। নীরা এক সময় হিলারি ক্লিন্টনেরও ঘনিষ্ঠ ছিলেন।
প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতিবিদ সিসিলিয়া রাউসকে আর্থিক পরামর্শদাতা পরিষদের দায়িত্বে আনছেন আমেরিকার সদ্য নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট। এই পরিষদের সদস্য সংখ্যা তিন। বাকি দুই পদে বসতে চলেছেন জেয়ার্ড বার্নস্টাইন এবং হিদার বাউশে। প্রথম অ্যাফ্রো–আমেরিকান হিসাবে ওই দায়িত্ব পেতে চলেছেন রাউস। 
হোয়াইট হাউসে প্রেস সচিবের দায়িত্বও সামলাবেন এক মহিলা। তিনি জেনিফার সাকি। দীর্ঘ দিন ডেমোক্র্যাটদের মুখপাত্র হিসেবে দায়িত্ব সামলেছেন তিনি। তা ছাড়া যোগাযোগ রক্ষাকারী দপ্তরের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নিতে পারেন কেট বেডিংফিল্ড। তিনি বাইডেনের হয়ে প্রচার সামলেছেন।  

জনপ্রিয়

Back To Top