‌আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ যা ভয় ছিল, তাই হল। জাপানে সুপার টাইফুন জেবি–তে প্রাণ হারানের ন’‌জন। বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়েছে কম করে ১০ লক্ষ বাড়িতে। বলা হচ্ছে, গত ২৫ বছরে এটাই জাপানে সবচেয়ে বড় টাইফুন। ঝড়ের জেরে পূর্ব জাপানে যান চলাচল ব্যবস্থা বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছে। পাশাপাশি রয়েছে অতিবৃষ্টি, বন্যা এবং ভূমিধস। এই নিয়ে চলতি বছরে বন্যা ও ঝড়ের কারণে মৃতের সংখ্যা ১০০ ছাড়াল। জাপানের পূর্ব উপকূলে মঙ্গলবার আছড়ে পড়েছিল জেবি। হাওয়া বয়েছিল ২১৬ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা বেগে। হাওয়ার দাপটে একটি অতিভারী ট্যাঙ্কার খড়কুটোর মতো উড়ে গিয়েছিল, যে ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। বিমান পরিবহন ব্যবস্থাও ভেঙে পড়েছে। কোবে বিমানবন্দরের মধ্যে রানওয়ের ওপরে জল জমে রয়েছে। বাতিল করা হয়েছে দু’‌শোর বেশি বিমানের উড়ান ও অবতরণ।
ত্রাণকার্যে পুলিস ও দমকলের সঙ্গে হাত লাগিয়েছে জাপানের সেনাও। সেনাসূত্রে খবর, ওসাকায় কম করে ১০ লক্ষ মানু্ষকে নিরাপদ স্থানে সরানো হয়েছে। ঝড়ের দাপটে ইতিমধ্যে শিকোকুতে মঙ্গলবার দুপুরে শিকোকু শহরে ভূমিধসের জেরে যানচলাচল বিপর্যস্ত হয়ে গিয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, যেখানে দেখা যাচ্ছে কোয়োটো শহরে জলমগ্ন অবস্থায় কীভাবে সারসার ট্রেন দাঁড়িয়ে রয়েছে। টোকিও থেকে হিরোশিমার মধ্যে বুলেট ট্রেন পরিষেবাও বন্ধ রাখা হয়েছে। হোনসু, কোবে–র মতো শহরগুলির অবস্থাও খুবই খারাপ। 

জনপ্রিয়

Back To Top