‌আজকাল ওয়েবডেস্ক: পাকিস্তানকে বিরাট অঙ্কের টাকা জরিমানা করল আন্তর্জাতিক সালিশি আদালত।‌ কানাডিয়ান বারিক গোল্ড কর্পোরেশন এবং চিলিয়ান অ্যান্টোফ্যাগেষ্টা পিএলসি’‌র যৌথ মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান টিথিয়ান কপারকে প্রায় ৬ বিলিয়ন ডলার বা ৫০ হাজার ৭০৯ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে পাকিস্তানকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গত শুক্রবার সালিশি আদালত ইমরান খান সরকারকে এই নির্দেশ দিয়েছে। 
অ্যান্টোফ্যাগেষ্টা পিএলসি’‌র দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে পাক সংবাদমাধ্যম দ্য ডন জানায়, টিথিয়ান কপার কর্তৃপক্ষ প্রায় এক দশক আগে পাকিস্তানের ইরান এবং আফগান সীমান্তবর্তী অঞ্চল থেকে একটি মৃত আগ্নেয়গিরির পাদদেশে বিশাল খনিজ সম্পদ ভাণ্ডারের আবিষ্কার করেছিল। ধারণা করা হচ্ছে, এখন পর্যন্ত আবিষ্কৃত সবচেয়ে বড় সোনা ও তামার খনির মধ্যে একটি অন্যতম। যৌথ মালিকানাধীন এই কোম্পানিটির দাবি, ২০১১ সাল পর্যন্ত রেকো ডিক নামে খনিটির বিভিন্ন খাতে প্রায় ২২ কোটি ডলারের বেশি বিনিয়োগ করেছে তারা। যদিও বালুচিস্তান সরকার কোনও কারণ না জানিয়ে খনির ইজারা নবীকরণ না করায় তাদের পক্ষে সেখানে আর কাজ করা সম্ভব হয়নি।
যার প্রেক্ষিতে ২০১৭ সালে বিশ্বব্যাংকের আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ বিরোধ নিষ্পত্তি সংস্থা (আইসিএসআইডি) পাক সরকারের বিপক্ষে রায় দিলেও তখন এর প্রকৃত জরিমানার পরিমাণ নির্ধারণ করা হয়নি। গত শনিবার টিথিয়ান কপারের বোর্ড চেয়ারম্যান উইলিয়াম হায়েস এক বিবৃতিতে জানান, তাঁরা এখন পর্যন্ত পাকিস্তানের সঙ্গে চুক্তি নবীকরণ করতে সম্মত আছে। এমনকী বিরোধ নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তাঁরা কোম্পানির বাণিজ্যিক এবং আইনগত সকল স্বত্ব বজায় রাখতে প্রস্তুত।
অন্যদিকে রেকো ডিক খনির মামলাটি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সামনে বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণের এক পরীক্ষা হিসেবে দাঁড়িয়েছে। পাকিস্তানের চলমান অর্থনৈতিক সংকট নিরসনে যা অতি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। পাকিস্তান সেনাবাহিনী খনিটিকে একটি গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্রীয় সম্পদ বলে দাবি করেছে। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top