‌আজকাল ওয়েবডেস্ক: জোর করে একজন সমকামী বা উভকামী মানুষকে বিপরীতকামী বানানোর বহু প্রচেষ্টা চলে গোটা পৃথিবী জুড়ে। তার জন্য তৈরি হয়েছে বিভিন্ন সংস্থা। যারা অনলাইনে মানুষকে আকর্ষণ করার চেষ্টা করে। বহু মানুষ ভুল বুঝে সেই ফাঁদে পা দিয়ে দেন। পরবর্তীকালে হীনমন্যতা, মানসিক অবসাদ, ড্রাগের ব্যবহার, এমনকি আত্মহত্যা পর্যন্ত করে বসেন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এদের লক্ষ্য থাকে নাবালক নাবালিকাদের দিকে। এসমস্ত অনলাইন কনটেন্ট নিষিদ্ধ করার পথে একধাপ এগিয়ে গেল ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম। 
এই প্রবণতায় দাঁড়ি টানতে কমপক্ষে আমেরিকার ১৯টি রাজ্যে, গোটা জার্মানিতে এধরণের রূপান্তর থেরাপি নিষিদ্ধ বা অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল স্তরেই এটি এখনও বেআইনি হয়নি। 
ইউরোপ, মধ্য প্রাচ্য এবং আফ্রিকার ইনস্টাগ্রামের জননীতি পরিচালক তারা হপকিন্স একটি বিবৃতিতে সিএনএনকে জানান, যৌনতা বা লিঙ্গের নামে মানুষের বিরুদ্ধে আক্রমণ চালানোর অনুমতি দিই না আমরা এবং রূপান্তর থেরাপি প্রচারে নিষেধাজ্ঞার জন্য আমাদের কিছু নিয়মকানুন আপডেট করছি।’ তিনি আরও একটি তথ্য দেন, ‘‌ইনস্টাগ্রামে ‘‌কোর ইস্যু ট্রাস্ট’‌ নামে ইংল্যান্ডের একটি ধর্মীয় গোষ্ঠী রূপান্তর থেরাপি প্রচার করছিল। @coreissuestrusttv থেকে কনটেন্টগুলি সরিয়ে নিয়েছি। আমরা সবসময়ে আমাদের নিয়মগুলি আপডেট করতে থাকি। বিশেষজ্ঞদের এবং যাঁরা ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছেন, তাঁদের সঙ্গে কথা বলে আমরা নতুন নতুন সিদ্ধান্তে আসি।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top