আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ফের বিতর্কে মার্ক জুকারবার্গের সংস্থা ফেসবুক। এবার প্রায় ১৫ লক্ষ ব্যবহারকারীর অজান্তে তাঁদের ই–মেল আইডি ফাঁস করার অভিযোগ উঠল ফেসবুকের বিরুদ্ধে। সমীক্ষা বলছে, ২০১৬ সাল থেকেই চলছে এমন। তবে বিবৃতি দিয়ে ফেসবুক ঘটনার ভুল স্বীকার করে জানিয়েছে, ‘অনিচ্ছাকৃত ভাবে’ আপলোড হয়ে গিয়েছে ব্যবহারকারীদের ইমেল আইডি। একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ার এই প্ল্যাটফর্মে অ্যাকাউন্ট খোলার পরেই ফাঁস হয়ে গিয়েছে ব্যবহারকারীদের ইমেল আইডি। অথচ ব্যবহারকারীরা জানতেই পারলেন না যে তাঁদের ব্যক্তিগত তথ্য আপলোড হয়ে যাচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে এইসব তথ্য ফেসবুক থেকে মুছে ফেলার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে বলেও জানিয়েছে ফেসবুক। তবে এভাবে ফেসবুকে ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস হও্যা কোনও নতুন ঘটনা নয়। এর আগেও এই বিষয়ে প্রকাশ্যে এসেছে মারাত্মক সব অভিযোগ। ছবি থেকে ভিডিও, রিলেশনশিপ স্ট্যাটাস থেকে ম্যাসেঞ্জারের কথোপকথন, সব হাতিয়ে নিয়েছে হ্যাকাররা। এর আগে ফেসবুক স্বীকার করে নিয়েছিল প্রায় ৫ কোটি অ্যাকাউন্ট থেকে তথ্য হাতিয়েছে হ্যাকাররা। সংস্থার তরফে জানান হয়, ব্যবহারকারীদের অ্যাকাউন্টের ‘view as’ অপশন থেকেই হ্যাকাররা তথ্য চুরি করেছে৷ একই ভাবে ওই অপশন থেকে বিভিন্ন অ্যাকাউন্টের অপব্যবহারও করা হয়েছে৷ ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে গ্রাহকদের না জানিয়ে তাঁদের তথ্য বিক্রি করার অভিযোগে, ইতালির এক ক্রেতা সুরক্ষা সংস্থা ফেসবুককে ১০ মিলিয়ন ইউরো (ভারতীয় মুদ্রায় ৮১ কোটি ২৪ লক্ষ টাকা) জরিমানাও করেছিল।‌

জনপ্রিয়

Back To Top