আজকালের প্রতিবেদন- বারফট্টাইয়ের চূড়ান্ত। ডোনাল্ড ট্রাম্পের দাবি, কোভিড ১৯–এর প্রতিষেধক পেয়ে গিয়েছে আমেরিকা। ২০ লাখের বেশি ডোজ নাকি তৈরি। শুধু তাই নয়, নিজের ব্যর্থতা ঢাকতে ভারত ও চীনকে চেপে ধরতেও ছাড়লেন না তিনি। মার্কিন প্রেসিডেন্ট সাংবাদিকদের সামনে দাবি করেছেন, ভারত ও চীনের মতো দেশগুলিতে নমুনা পরীক্ষা আরও বাড়ানো হলে বিশ্বের সব থেকে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ আমেরিকার থেকে সেখানে অনেক বেশি করোনা রোগী পাওয়া যাবে। ট্রাম্প তঁার ভাষণে বলেন, ‘আমেরিকা দু’কোটি নমুনা পরীক্ষা করেছে। দেশে আক্রান্ত ১৮ লক্ষের বেশি। মৃতের সংখ্যা ১ লক্ষ ১১ হাজার।’
পিউরিটান সংস্থার তৈরি র‌্যাপিড টেস্টের কিট নিয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘দেশবাসীকে জানাতে চাই, আমাদের এখানে বেশি সংখ্যক রোগী ধরা পড়ে। কারণ, এখানে বেশি পরীক্ষা হয়। ভারত এবং চীনে যদি ব্যাপক হারে পরীক্ষা করা হয়, তা হলে সেখানেও আক্রান্তের সংখ্যা অনেক বাড়বে। দেখবেন, পরীক্ষা যত বাড়বে, আক্রান্তের সংখ্যাও ততই বাড়তে থাকবে।’ দেশবাসীকে ট্রাম্প বলেন, ‘আপনারা যে ভাবে বেশি সংখ্যক পরীক্ষা সম্ভব করে তুলছেন, সেজন্য ধন্যবাদ। আমাদের দেশ আবারও স্বাভাবিক হচ্ছে এবং আমাদের অর্থনীতি এমন ভাবে পুনরুদ্ধার হচ্ছে, যা কেউ সম্ভব বলে ভাবতে পারেননি।’
বিশ্ব জুড়ে বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। আর এই অতিমারীর প্রভাব সব থেকে বেশি পড়েছে আমেরিকায়। ইতিমধ্যেই সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ১৯ লাখ। মৃত্যু হয়েছে এক লক্ষ আট হাজারের বেশি। এই পরিস্থিতিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানালেন, করোনার প্রতিষেধক তৈরির ক্ষেত্রে অনেকটা এগিয়ে গিয়েছে তঁার দেশ। ইতিমধ্যেই এই প্রতিষেধকের ২০ লাখের বেশি ডোজ তৈরি করা হয়ে গেছে। শুক্রবার হোয়াইট হাউসে ট্রাম্প বলেন, ‘খুব তাড়াতাড়ি কিছু সদর্থক ফল আমরা দেখতে পাব। প্রতিষেধক তৈরিতে অনেক উন্নতি হয়েছে। সরবরাহের জন্য আমরা তৈরি। এখন পরীক্ষা–নিরীক্ষা চলছে।’ ট্রাম্প আরও বলেন, ‘প্রতিষেধক তৈরি করা ছাড়াও আমরা থেরাপির ক্ষেত্রেও ভাল কাজ করছি। চিকিৎসায় দ্রুত সাড়া পাওয়া যাচ্ছে।’ 
তা হলে কি কোভিড–১৯–এর প্রতিষেধক তৈরি করে ফেলেছে আমেরিকা? উত্তর হল, না। পরীক্ষা চলছে। নিউ ইয়র্ক টাইমস সূত্রে খবর, ট্রাম্প সরকার পঁাচটি কোম্পানিকে চিহ্নিত করেছে। যাদের করোনা প্রতিষেধক তৈরি করার বরাত দেওয়া হতে পারে। এই প্রসঙ্গে ট্রাম্প বলেন, ‘‌সাত থেকে আটটি কোম্পানি খুব ভাল কাজ করছে। সবাই নিজের মতো চেষ্টা করছে। আশা করছি ভাল ফল আমরা দেখতে পাব।’‌ যদিও কোন কোন কোম্পানি এখন প্রতিষেধক তৈরি করছে, সে ব্যাপারে কিছু জানাননি তিনি।‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top