আজকাল ওয়েবডেস্ক: সারা দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে নাস্তানাবুদ আমেরিকা। মোকাবিলা করতে দিশাহারা ট্রাম্প সরকার ওষুধ চেয়ে আগে ভারতকে অনুরোধ তারপর হুমকি দিয়েছে। এমনকি প্রশান্ত মহাসাগরের উপর মোতায়েন তাদের যুদ্ধবিমানেও কোভিড–১৯–এর সংক্রমণ আরও উদ্বেগ বাড়িয়েছে ট্রাম্প প্রশাসনের। আর এই ফাঁকেই দক্ষিণ চীন সাগরে নিজেদের উপস্থিতি আরও জোরদার করছে চীন।
 গত সপ্তাহেই চীন সেনার ওয়েবসাইটে তারা লিখেছে, দক্ষিণ চীন সাগরে তাদের নৌবাহিনীর বড় ধরনের মহড়া চলছে। মহড়া চলাকালীন ভিয়েৎনামের একটা মৎস্যজীবীদের নৌকা ডুবে গিয়েছে। এমনকি করোনাভাইরাসের প্রথম উৎপত্তিস্থল চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে ফের সামরিক সরঞ্জাম তৈরির কারখানায় উৎপাদন অনেকাংশে বাড়ানো হয়েছে।
দক্ষিণ চীন সাগরে চীনের এই সামরিক মহড়ার খবর তখনই সামনে আসে যখন মার্কিন যুদ্ধবিমান ইউএসএস থিওডোর রুজভেল্ট ওই অঞ্চলের উপর দিয়ে গুয়ামে উড়ে যায়। ওই বিমানে ১৭০জন কোভিড–১৯ আক্রান্ত। রুজভেল্টের কমান্ডার ক্যাপ্টেন ব্রেট ক্রোজিয়ের তাঁর সহকর্মীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য অবিলম্বে মার্কিন সরকার পদক্ষেপ করতে বলে চিঠি লিখেছিলেন। সেই চিঠি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পরই তাঁকে বরখাস্ত করা হয়। মার্কিন নৌসেনার অনেকেই কোভিড–১৯ আক্রান্ত। এপর্যন্ত শুধু মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তরেই ১৫০০জনের বেশি কোভিড–১৯ পজিটিভ ধরা পড়েছেন। সংক্রমণ রুখতে এতোদিনে পদক্ষেপ করেছে পেন্টাগন। বাহিনীর স্থান পরিবর্তন, বদলি, নিয়োগ বা প্রশিক্ষণ আপাতত স্থগিত রাখা হয়েছে।       

জনপ্রিয়

Back To Top