সমীর দে, ঢাকা, ২৮ মে- দু’‌মাসের লকডাউন আর না বাড়িয়ে ৩১ মে রবিবার থেকেই সীমিত পরিসরে অফিস চালু হচ্ছে। পাশাপাশি নির্দিষ্ট সংখ্যক যাত্রী নিয়ে বাস, ট্রেন ও লঞ্চ চলবে। এদিকে বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ ২,০২৯ জন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে। মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৫৯। এদিকে অফিস খোলার খবরে ঢাকামুখী মানুষের স্রোত শুরু হয়েছে। ইদ করতে যাঁরা গ্রামের বাড়ি গিয়েছিলেন, তাঁরা এখন ঢাকায় ফিরে আসছেন।
মাস্ক পরা–সহ স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের জারি করা নির্দেশ কঠোরভাবে মানতে বলা হয়েছে। ২৬ মার্চ থেকে বন্ধ দেশের অফিস–আদালত। গণপরিবহণও বন্ধ। যখন রোগীর সংখ্যা বাড়ছে সবচেয়ে বেশি, তখন ইদ কাটিয়ে অফিস ও গণপরিবহণ চালু হতে যাচ্ছে ৩১ মে থেকে। আদেশে বলা হয়েছে, সরকার ১৫টি শর্তে দেশের সার্বিক কাজকর্ম এবং জনসাধারণের চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ বা সীমিত করেছে। তবে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও কোচিং সেন্টার ১৭ মার্চ থেকেই বন্ধ। এখনও সেগুলি বন্ধই থাকছে।
১৫ জুনের পর কী হবে, সেই প্রশ্নে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, ১৫ জুন পর্যন্ত আমরা এ সব নিয়মকানুন কতটুকু মানতে পারলাম, সেটা দেখে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।
এদিকে দেশে করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ৪০ হাজার ছাড়িয়ে গেল। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় এ রোগে আরও ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এই সময়ে রেকর্ড ২,০২৯ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়ায় দেশে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে হল ৪০,৩২১। সারা দেশে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগীদের মধ্যে এ পর্যন্ত মোট ৮,৪২৫ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।
এদিকে ইদের ছুটি শেষে দক্ষিণাঞ্চল থেকে রাজধানীমুখী হাজার হাজার মানুষের ঢল নেমেছে মুনশিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট ও রাজবাড়ি এবং মানিকগঞ্জে দৌলদিয়া–পাটুরিয়া ঘাটে। কাঁঠালবাড়ি–শিমুলিয়া রুটে বৃহস্পতিবার ভোর থেকে ছিল ঢাকামুখী যাত্রীদের ঢল। ফেরিতে উপচে–পড়া ভিড়। সংক্রমণের ঝুঁকি উপেক্ষা করে গাদাগাদি করে মানুষ পদ্মা পাড়ি দিচ্ছে। এই অবস্থা দৌলদিয়া ও পাটুয়ারিতেও। শিমুলিয়া ঘাটের কর্তা শফিকুল ইসলাম বলেন, সকাল থেকে কাঁঠালবাড়ি থেকে হাজার হাজার মানুষ পরিবার–পরিজন নিয়ে শিমুলিয়ায় আসছেন। স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না তাঁরা।‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top