আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের আল নুর মসজিদে জঙ্গি হামলা। ঘটনায় কমপক্ষে ৪৯ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এমনটাই দাবি স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ও পুলিশের। আহত অন্তত ২০ জন। মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে। ঘটনার সময়ে মসজিদে ছিলেন ১৪০ জন। ভয়াবহ হামলার পর লিন্ডউড নামে অন্য একটি জায়গার মসজিদকেও পুলিশ ঘিরে রেখেছে। সেখানেও গুলি চলেছে বলে জানা গেছে। ক্রাইস্টচার্চের সমস্ত স্কুল বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন। সাধারণ মানুষকে মসজিদ চত্বরে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। পুলিশের তরফে সকলকে বাড়ির বাইরে বেরোতে বারণ করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই চার সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। যার মধ্যে তিনজন পুরুষ ছাড়াও একজন মহিলা রয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। জানা গেছে মূল আততায়ী অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দা। সেখানকার দক্ষিণপন্থী সংগঠনের সদস্য ছিল সে। অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন এখবর জানিয়েছেন।  
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, স্থানীয় সময় শুক্রবার দুপুরে এই গুলি চালানোর ঘটনা ঘটে। খুব কাছ থেকে বন্দুকবাজ গুলি চালায়। মৃতদের মধ্যে মহিলা ও শিশুও রয়েছে। সেসময় মসজিদ চত্বরে প্রার্থনার জন্য হাজির ছিলেন বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা। তাঁরা অল্পের জন্য রক্ষা পান। গুলির শব্দ শুনেই তামিমরা মসজিদ চত্বর ছেড়ে চলে যান। 
এই ঘটনার পর প্রধানমন্ত্রী নিউজিল্যান্ডের জাসিন্ডা আর্ডান তাঁর পরবর্তী অনুষ্ঠানগুলি বাতিল করেছেন।‌ তিনি বলেছেন ‘‌নিউজিল্যান্ডের এটা একটা কালো দিন। পরিকল্পনা করে এই জঙ্গি হানা হয়েছে।’‌ ক্রাইস্টচার্চের কমিশনার মাইক বুশ বলেছেন, ‘‌এটা একটা ভয়ঙ্কর ঘটনা। আমরা গোটা পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছি। জঙ্গিকে খতম করতে চেষ্টা করছে পুলিশ।’‌ প্রশাসনের দাবি মসজিদ সংলগ্ন চত্বরে রাখা বেশ কিছু গাড়ি থেকে বিস্ফোরক উদ্ধার হয়েছে। ইতিমধ্যেই প্রশাসনের তরফে নিউজিল্যান্ডের সমস্ত মসজিদ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 
জানা গেছে, শুক্রবার হেগলে পার্কের আল নুর মসজিদে নামাজ পড়তে যাওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট টিমের। কিন্তু সেখানে পৌঁছানোর আগেই গুলি চালানোর ঘটনা ঘটে যায়। ফলে অল্পের জন্যে বেঁচে গেলেন তামিম ইকবালরা।   
প্রত্যক্ষদর্শীর বিবরণ অনুযায়ী, এদিন দুপুরে মসজিদে ঢুকে পড়ে এক বন্দুকধারী। এরপরই নির্বিচারে গুলি চালাতে শুরু করে। মসজিদের ভেতরে বহু মানুষকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা গিয়েছে বলে জানিয়েছে রেডিও নিউজিল্যান্ড। তারপরই জঙ্গির খোঁজে এলাকায় তল্লাশি অভিযান শুরু করে পুলিশ। ইতিমধ্যেই চার সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। 
অন্যদিকে, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের মুখপাত্র জালাল ইউনুস জানিয়েছেন, ‘‌মসজিদে টিম ঢোকার আগেই গুলি চলার ঘটনা ঘটে যায়। খবর পেয়েই এলাকা থেকে বেরিয়ে আসে দলের সদস্যরা। ক্রিকেটারদের হোটেল থেকে বের হতে নিষেধ করা হয়েছে।’‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top