আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌  দুটি ভয়ঙ্কর দুর্ঘটনায় তিন শতাধিক মানুষের মৃত্যুর দীর্ঘ কয়েক মাস পর অবশেষে বিমানের পরিকাঠামোগত ত্রুটির কথা স্বীকার করল বোয়িং কর্তৃপক্ষ। মার্কিন বিমান প্রস্তুতকারী সংস্থা বোয়িং কোম্পানির সিইও তথা চেয়ারম্যান ডেনিস মুলেনবার্গ রবিবার জানিয়েছেন, ৭৩৭ ম্যাক্স বিমানের ককপিটে সতর্কতা ব্যবস্থা প্রক্রিয়াকরণে ভুল হয়েছিল। ককপিটের সতর্ক–বাতি জ্বলেনি। নিয়ন্ত্রণক বা গ্রাহকরাও এই ত্রুটি বুঝতে পারেননি সেভাবে। তবে বিমানের ডিজাইন, প্রযুক্তি বা সফ্‌টওয়্যারে ত্রুটির কথা মানতে চাননি মুলেনবার্গ। একইসঙ্গে তিনি এও বলেছেন, এই ত্রুটি মেরামত করতে ইতিমধ্যেই কাজ শুরু করে কোম্পানি। যাত্রীদের আস্থা ফিরে পেয়ে এবছরেই ফের আকাশে উড়বে বোয়িং বলে আশাবাদী মুলেনবার্গ। 
বোয়িং ৭৩৭–এর আধুনিক সংস্করণ ৭৩৭ ম্যাক্স প্রথম আকাশে ওড়ে ২০১৭ সালে। দ্রুত গতি এবং অতিরিক্ত যাত্রী বহনের ক্ষমতার জন্য সারা বিশ্বে দ্রুত জনপ্রিয় হয়েছিল ৭৩৭ ম্যাক্স। কিন্তু গত বছরের অক্টোবরে ইন্দোনেশিয়ার লায়ন এয়ারলাইন্স এবং এবছরের মার্চে ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের দুটি বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ৮ বিমান ওড়ার কয়েক মুহূর্ত পরেই ভেঙে পড়ে সমুদ্রে। যাত্রী এবং বিমানকর্মী মিলিয়ে প্রথম দুর্ঘটনায় ১৮৯ জন এবং দ্বিতীয় দুর্ঘটনায় ১৫৭ জনের মৃত্যু হয়েছিল। তারপরই বিশ্বজুড়ে বোয়িং বিমানের ওড়া স্থগিত করে দেয় বিভিন্ন রাষ্ট্র।     
ছবি:‌ সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট

জনপ্রিয়

Back To Top