বীথি চট্টোপাধ্যায়:‌ আনিসুজ্জামানের প্রয়াণে বাঙালির চিন্তাভাবনার জগতে একটা বড় শূন্যতা তৈরি হল। এত পণ্ডিত মানুষ ছিলেন, কিন্তু খুব সহজ, সরল, অনাড়ম্বর স্বভাব ছিল। কঠিন বিষয়কে সহজ করে বলতে পারতেন। তবে কথায় বেশিরভাগ থাকত তীক্ষ্ণ রসবোধ। বহু বছরের যোগাযোগ আনিসদার সঙ্গে। উনি ছিলেন পারফেকশনিস্ট। একবার ওঁকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি হওয়ার জন্য অনুরোধ করা হল। কিন্তু উনি রাষ্ট্রপতি হতে সম্মত হলেন না। আমি কলকাতার একটি আড্ডায় জিজ্ঞেস করলাম, ‘‌কেন রাজি হলেন না?’‌ উনি একটু চুপ করে রইলেন। পাশ থেকে তখন একজন বললেন, ‘‌আসলে আনিসদা কোনও সাতেপাঁচে থাকেন। না উনি এসবে রাজি হবেনই বা কেন?’‌ আনিসদা তখন বললেন, ‘‌না তুমি ঠিক বলছ না, সাতেপাঁচে আমি খুবই থাকি। সাতেপাঁচে থাকাই তো আমার কাজ।‌ ঘটনা হল যে রাষ্ট্রপতি হয়ে গেলে আর এত সাতেপাঁচে থাকতে পারব না। তাই রাজি হলাম না। প্রোটোকলের মধ্যে থাকতে পারি না আমি। নিজের মালিক নিজে থাকব সারাজীবন।’‌ এই ছিলেন আনিসদা। যিনি সাতেপাঁচে থাকার জন্য রাষ্ট্রপতি হতে চাননি। এইরকম অনেক স্মৃতিই মনে পড়ছে। ঢাকা গেলে এরপর শহরটাকে খুব ফাঁকা লাগবে মনে হয়।

জনপ্রিয়

Back To Top