আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ২৬/‌১১ জঙ্গি হামলার মাস্টারমাইন্ড হাফিজ সইদকে গ্রেপ্তার করল পাকিস্তান পুলিশ। আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ক্রমাগত কোণঠাসা হওয়ার ফলে এই গ্রেপ্তার বলে মনে করা হচ্ছে। জামাত–উদ–দাওয়ার প্রধানের গ্রেপ্তারিতে জোর চর্চা শুরু হয়েছে। এই মুহূর্তে এটাই সবচেয়ে বড় আন্তর্জাতিক খবর। পাকিস্তান পুলিশের সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলা দপ্তর বুধবার হাফিজ সইদকে গ্রেপ্তার করেছে বলে খবর। 
এদিন লাহোর থেকে গুজরানওয়ালা যাওয়ার পথেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে খবর পাওয়া গিয়েছে। তাকে বিচারবিভাগীয় হেপাজতে নেওয়া হবে বলে সূত্রের খবর। যদিও হাফিজের দাবি, সবরকম মামলার চ্যালেঞ্জ করা হবে আদালতে। পাকিস্তান বিশ্বের দরবারে সন্ত্রাসবাদ নিয়ে ক্রমাগত সমালোচিত হচ্ছিল। তার ওপর ইমরান খান সরকার এখন প্রবল অর্থকষ্টে ভুগছে। সেখানে বিদেশের সাহায্য তাঁদের দরকার। কিন্তু বিশ্বব্যাঙ্ক থেকে শুরু করে রাষ্ট্রপুঞ্জ জানিয়ে দিয়েছে পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদ তাদের মাটি থেকে উপড়ে না ফেললে কোনও সাহায্য করা হবে না। উলটে কালো তালিকাভুক্ত করা হবে। 
এই সাঁড়াশি চাপের কাছে নত হয়েই হাফিজকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। তাছাড়া এটাও প্রমাণিত হয়ে গেল হাফিজ সইদ পাকিস্তানেই বহাল তবিয়তেই ছিল। সেখান থেকেই সে মুম্বই হামলার ছক কষেছিল। এবং হামলা করেছিল। গতকালই পাকিস্তান তাদের আকাশসীমা ভারতের জন্য খুলে দিয়েছিল। ফলে নিষেধাজ্ঞা উঠে গিয়েছে। সেটাও করা হয়েছিল নিজেদের ভাবমূর্তির স্বার্থে। এবার হাফিজ সইদকে গ্রেপ্তার করে আরও মুখরক্ষা করার চেষ্টা করা হল বলে মনে করা হচ্ছে। পাকিস্তানেই হাফিজের বিরুদ্ধে ২৩টি মামলা ছিল। তার মধ্যে অনেক ক্ষেত্রে জামিনও পেয়েছিল সে। হাফিজ সইদকে ইতিমধ্যেই বিশ্বের সন্ত্রাসবাদী হিসাবে চিহ্নিত করেছে আমেরিকা। আর এই গ্রেপ্তারির পর আমেরিকার কাছে ভাল সাজতে পারবে পাকিস্তান বলেও কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মত।

জনপ্রিয়

Back To Top