আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বিদেশের মাটিতে নানা কৌশল করেও সহানুভূতি আদায় করতে পারেনি পাকিস্তান। তাই দেশের মাটি থেকে বিপ্লব গড়ে তোলা হবে বলে পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছিল। তাও ব্যুমেরাং হয়ে গেল পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কাছে। পাক অধিকৃত কাশ্মীরের মুজফফরাবাদে সভা করে ভারতের কাশ্মীর নিয়ে সহানুভূতি আদায়ের চেষ্টা করেছিলেন ইমরান খান। আর তাঁকেই কিনা শুনতে হল, ‘‌গো নিয়াজি গো।’‌ এমনকী ইমরান খানের বক্তব্যের সময় স্লোগান উঠল, ‘‌কাশ্মীর বনেগা হিন্দুস্তান।’‌        
কাশ্মীর থেকে ভারত সরকারের ৩৭০ ধারা বিলোপের সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারছেন ইমরান খান। ভারতের উপরে চাপ সৃষ্টি করে আন্তর্জাতিকস্তরে মুখ পুড়েছে তাঁর। তাই পাক অধিকৃত কাশ্মীরে সভা করে হাতে বন্দুক তুলে নেওয়ার বার্তা দিলেন ইমরান খান। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী যখন পাক অধিকৃত কাশ্মীরের মুফফরাবাদের সভা থেকে উস্কানি দিচ্ছেন তখনই স্লোগান উঠল ‘‌কাশ্মীর বনেগা হিন্দুস্তান।’‌ আবার কখনও আওয়াজ উঠল, ‘‌গো নিয়াজি গো।’‌ এত তাড়াতাড়ি একজন প্রধানমন্ত্রীর বিপরীতে জনমত চলে যাওয়ার নজির আগে কখনও ঘটেনি বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।  
এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সোশ্যাল মিডিয়ায় উঠেছে কটাক্ষের ঝড়। নেটিজেনদের প্রতিক্রিয়া, এবার পাক অধিকৃত কাশ্মীরও হাতছাড়া হবে। কেউ লিখেছেন, দীর্ঘদিন ধরেই পাক অধিকৃত কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে। 

জনপ্রিয়

Back To Top