আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ করোনায় আক্রান্ত গোটা বিশ্ব। কঠিন পরিস্থিতি। বাঁচতে লড়াই চলছে। প্রতিষেধক এখনও আবিষ্কার না হলেও, কাজ অনেকটাই এগিয়েছে। আপাতত ইঁদুরের ওপর পরীক্ষা করা হয়েছে। আর প্রাথমিক পরীক্ষার ফল ইতিবাচক। এমনটাই দাবি মার্কিন গবেষকদের। 
গবেষকরা জানিয়েছেন, ‘‌ইঁদুরদের এই প্রতিষেধকটি দেওয়া হলে দু’সপ্তাহের মধ্যে তাদের দেহে নোভেল করোনা ভাইরাসকে মোকাবিলা করার জন্য একগুচ্ছ অ্যান্টিবডি তৈরি হয়৷ অর্থাৎ তাদের শরীরের ইমিউনিটি বাড়াচ্ছে।’‌ গবেষকরা মনে করছেন, করোনাভাইরাসের এই ভ্যাকসিনটি জুনের মধ্যে মানবদেহে পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত হয়ে যাবে। সবমিলিয়ে আরও ১৮ মাস সময় লাগবে পুরোপুরি এই ভ্যাকসিনকে বাজারে আনতে। তার আগে প্রতিনিয়ত এটির ট্রায়াল চলবে।
আসলে, কোভিড–১৯ বা করোনাভাইরাস নিছক সাধারণ কোন ফ্লু–ভাইরাস নয়। বিজ্ঞানীরা বলছেন, জিনের গঠন বদলে প্রতিনিয়ত এই ভাইরাস নিজের চরিত্রই বদলে ফেলছে। এই ভাইরাসের বিশেষ স্ট্রেন সার্স–সিওভি–২–এর স্পাইক প্রোটিন জোড় বাঁধছে মানুষের শরীরের বিশেষ জিনের সঙ্গে। বাহক কোষ বা হোস্ট সেলের সাহায্যেই আরও সংক্রামক হয়ে উঠছে করোনা। 

জনপ্রিয়

Back To Top