সাগরিকা দত্তচৌধুরি
হঠাৎ দৈনন্দিন রুটিনের ছন্দপতন। লকডাউনের চার দেওয়ালে হারিয়ে যাচ্ছে শৈশব। স্কুল ছুটি, এদিকে বাড়ির বাইরে বেরনোর উপায় নেই। পার্কে যাওয়া নেই। বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হচ্ছে না। কী করে সময় কাটবে?‌ এখন আরও বেশি করে সন্তানদের সঙ্গে সময় কাটাতে অভিভাবকদের পরামর্শ দিচ্ছেন পশ্চিমবঙ্গ শিশু অধিকার সুরক্ষা আয়োগের চেয়ারপার্সন অনন্যা চক্রবর্তী। শিশুর প্রতি খেয়াল বা সময় কাটানোর ঘাটতি হলে কচি মনে বাসা বাঁধবে হতাশা, উত্তেজনা, বিরক্তি, দুশ্চিন্তা। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত শিশু–কিশোরদের সঙ্গে কীভাবে সময় কাটানো যায়?‌ একটা রুটিন দিয়েছে শিশু আয়োগ। 
চেয়ারপার্সন অনন্যা চক্রবর্তী বলেন, ‘‌আমরা একটা পরামর্শ দিয়েছি। সেই অনুযায়ী নিয়মিত বাবা–মায়েরা মানলে শিশুর সময় ভাল কাটবে। ওদের সহজ সরল মন হতাশায় ভুগবে না। ওদের কথায় গুরুত্ব দেওয়া উচিত। পরিবারের সকলের সঙ্গে সময় কাটালে ওদের মধ্যে একাকিত্ব আসবে না। যৌথ পরিবারের মর্ম কিছুটা হলেও বুঝবে। বাড়ির বড়রা যদি নিজেদের মোবাইলে ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপে ব্যস্ত হয়ে পড়েন তা হলে শিশুরাও বাস্তব জগৎ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে সোশ্যাল মিডিয়াকেই সঙ্গী বানিয়ে ফেলবে। এতে ক্ষতিকর প্রভাব পড়বে।’‌ একটি লগ বুক খাতায় সন্তানের নিজের অনুভূতিগুলো লেখার অভ্যাস করালে ভাল হয়। এতে দুঃখ, ভয়, রাগ যাই মনে থাকুক না কেন সেটি খাতায় প্রকাশ পাবে। শিশু হোক বা বয়ঃসন্ধিকালীন সময় ওদের মনের অনুভূতিগুলো ভাল করে জানতে পারলে আগে থেকেই শুধরে নেওয়ার সুযোগ থাকে বলে জানান কমিশনের এক সদস্য।  ‌

সকালে 
ä    ঘুম থেকে উঠে হালকা গান চালিয়ে প্রাণায়াম
ä    ঝুল বারান্দা বা ছাদে কিংবা ঘরে ফ্রি হ্যান্ড এক্সারসাইজ
ä    ঘুম থেকে উঠে নিজের বিছানা গোছানো
ä     প্রাতরাশ তৈরিতে সাহায্য। যেমন পাউরুটিতে মাখন বা জ্যাম লাগানো, সিদ্ধ ডিমের খোসা ছাড়ানো, পরিবেশন করা।
ä    দুপুরে নিজের পছন্দসই কোনও কাজে ব্যস্ত থাকা  
ä    বাবা, মা, দাদু, ঠাকুমা সন্তানের খেলার সঙ্গী হলে ভাল 
ä    গল্পের বই পড়া
ä    হাতের লেখা অভ্যাস করা, গান, গিটার, সিন্থেসাইজার অভ্যাস করা
ä    আঁকা, অরিগ্যামি, পাজল, বোর্ড গেম প্রভৃতি
সন্ধ্যায়
ä    সন্ধেবেলায় কোনও জলখাবার তৈরিতে ওদের সাহায্য নেওয়া
ä    গাছে জল দেওয়া
ä    ইনডোর কোনও গেমে অংশ নেওয়া যেমন– লুডো, দাবা
ä    নির্দিষ্ট একটা সময়ে সন্তান কী বলতে চায় তা মন দিয়ে শোনা 
ä    গান চালিয়ে শিশুকে নাচতে দেওয়া
ä    এক ঘণ্টার মতো টিভিতে কার্টুন দেখতে দেওয়া
ä    মেমরি গেম
রাতে
ä    নৈশভোজ সারার পর প্রার্থনা করা
ä    ঘুমোনোর জন্য প্রস্তুত হওয়া

জনপ্রিয়

Back To Top