আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ অনেকেই আছেন যাঁরা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের মানসিক অসুখে ভোগেন। অবসাদ, রাগ, অভিমান–সাধারণের তুলনায় তাঁদের যেন একটু বেশিই। আর তখনই প্রয়োজন পড়ে সাইকোলজিস্টের। কিন্তু কীভাবে কাজ করেন একজন সাইকোলজিস্ট?‌ ভবিষ্যতে সাইকোলজি নিয়ে পড়াশোনা কেমন হতে পারে?‌ কী কী করতে হবে, এই সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা করতেই আনন্দপুরের ফর্টিস হাসপাতালের পক্ষ থেকে একটি ‘‌সামার ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রাম’ চালু করা হচ্ছে। একাদশ এবং দ্বাদশ শ্রেণির পড়ু্য়ারা, যাঁরা সাইকোলজি নিয়ে পড়াশোনা করছে কিংবা ভবিষ্যতে এই বিষয়টি নিয়ে পড়তে ইচ্ছুক অথবা কেরিয়ার হিসেবে বেছে নিতে চায়, তাঁরা এই প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করতে পারে। ‌এখনও পর্যন্ত ১১টি স্কুলের ২৫০ জন ছাত্র–ছাত্রী নাম নথিভুক্ত করিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে মর্ডান হাই স্কুল, লা মার্টিয়ার ফর বয়েজ অ্যান্ড ফর গার্লস, গোখলে মেমোরিয়াল গার্লস হাইস্কুল–সহ আরও অনেক নাম করা স্কুল। চার সপ্তাহের এই প্রোগ্রামটি শুরু হয়েছে গত ১৪ মে থেকে। চলবে ৮ জুন পর্যন্ত। বেশ কয়েকটি ব্যাচে ভাগ করে ক্লাস চলছে। প্রত্যেকটি ব্যাচের ৫ দিনের ক্লাস হবে। এর মধ্যে প্রথম চারদিন আলোচনা থাকবে এবং শেষদিন পড়ুয়ারা নিজস্ব মতামত দেবে। পরে সেখান থেকে নির্বাচিতরা হাসপাতালের বিশিষ্ট চিকিৎসক এবং অন্যান্য অতিথিদের সামনে নিজেদের মতামত ব্যক্ত করার সুযোগ পাবে।  ফর্টিস হাসপাতাল আনন্দপুরের বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা:‌ সঞ্জয় গর্গ বলেন, ‘‌তরুণ ছাত্র–ছাত্রীরা দেশের ভবিষ্যৎ। তাঁরা এই বিষয়ে জ্ঞান অর্জন করলে আগামিদিনে সমাজের অন্যান্যরাও এই বিষয়টি নিয়ে সচেতন হবে। যাঁরা এখানে অংশগ্রহণ করেছে তারা সহজেই এই রোগের সাধারণ লক্ষণগুলি চিহ্নিত করতে পারবে, এবং কীভাবে প্রতিকার করতে হবে অথবা ওই ব্যক্তির পাশে থাকা যাবে, সেটাও তারা বুঝতে পারবে।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top