সাগরিকা দত্তচৌধুরি- পর্যাপ্ত সুরক্ষাবিধি মেনে দাঁতের চিকিৎসা পরিষেবা চালুর অনুমতি দিল স্বাস্থ্য দপ্তর। দাঁতের চিকিৎসকদের চেম্বার বা ক্লিনিকে, হাসপাতালে কিংবা রোগীদের কী কী সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে তার সুনির্দিষ্ট গাইডলাইন প্রকাশ করেছে স্বাস্থ্য দপ্তর। এ ছাড়াও ক্লিনিকে বা অপারেশনের জায়গায় কী কী বিধি মানতে হবে এবং দাঁতের কোন কোন ইমার্জেন্সি পরিষেবা দেওয়া যাবে, তার জন্য একগুচ্ছ নির্দেশ উল্লেখ রয়েছে গাইডলাইনে। তার কয়েকটি উল্লেখ করা হল—
• ওপিডি–তে ঢোকার মুখেই কিংবা নাম নথিভুক্তকরণের জায়গায় সাঙ্কেতিক আকারে বা পোস্টার টাঙিয়ে নির্দেশ দিতে হবে, ৪৮ ঘণ্টার বেশি কোনও রোগী সর্দি, কাশি, জ্বর, গলাব্যথা বা শ্বাসকষ্টের সমস্যায় ভুগলে দাঁতের ডাক্তারকে দেখানোর দিন পরিবর্তন করার জন্য।
• থার্মাল স্ক্রিনিং করে তাপমাত্রা মাপা
• রিশেপসনে রোগীর সঙ্গে সরাসরি সংস্পর্শ এড়াতে কাচের বা প্লাস্টিকের জানালা ব্যবহার করা
• জুতো খুলে ও হাত ধুয়ে প্রবেশ করা, সবসময় মাস্ক পরা
• রোগীর চুল শক্ত করে বাঁধা থাকতে হবে। কোনওরকম ব্যাগ, আংটি, কানের দুল ব্যবহার না করা
• কড়াভাবে মানতে হবে সামাজিক দূরত্ব। ভিড় এড়াতে টোকেন সিস্টেম করা
• অপেক্ষা করার জায়গা, দরজার হাতল, চেয়ার, শৌচাগার ঘন ঘন জীবাণুমুক্ত করা
• রোগীর নাম, ঠিকানা, ফোন নম্বর, ভ্রমণ সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য নেওয়া
• রোগীর কাছ থেকে ৬ ফুট দূরত্ব বজায় রেখে চিকিৎসা করা
• গ্লাভস, মাস্ক, হেড ক্যাপ, ফেশ শিল্ড, পিপিই প্রভৃতির ব্যবহার
• যে পদ্ধতিতে ছোট ছোট জলবিন্দুর মতো থুতু বা অ্যারোসোল নির্গত হওয়ার আশঙ্কা থাকে, যতটা সম্ভব তা এড়িয়ে চলা
• একজন রোগীর চিকিৎসার পর ৩০ মিনিট ধরে সব যন্ত্রপাতি, রুম, ডেন্টাল চেয়ার, মেঝে সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইড দিয়ে জীবাণুমুক্ত করা‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top