অলোকপ্রসাদ চট্টোপাধ্যায়- ঘূর্ণিঝড়ে ভেঙে পড়া গাছপালা ইতিমধ্যেই সরিয়ে ফেলা হয়েছে টেকনিশিয়ান্স স্টুডিও চত্বর থেকে। সেই স্টুডিওতেই শিল্পী, কলাকুশলী, প্রযোজক, চ্যানেল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠকের পর মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস বৃহস্পতিবার জানিয়ে দিলেন, ধারাবাহিকের শুটিং শুরু হবে আগামী বুধবার (‌১০ জুন)‌ থেকে। সাজ–‌সাজ রব টালিগঞ্জের সব স্টুডিওতেই। ক্যামেরা, আলো, রিফ্লেক্টর–‌সহ যাবতীয় যন্ত্রপাতি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করার কাজ শুরু হয়েছে অনেক স্টুডিওতেই। বাংলা ধারাবাহিকের দর্শকরা প্রায় তিন মাস বাদে নতুন পর্ব দেখতে পাবেন আগামী ১৫ জুন থেকে। ১০ জুন যে–‌সব ধারাবাহিকের শুটিং শুরু হবে, প্রতিটিরই নতুন পর্ব সম্প্রচারিত হবে ১৫ জুন।
করোনার প্রকোপে, লকডাউনের জেরে ১৮ মার্চ থেকে শুটিং বন্ধ বাংলা সিনেমা, সিরিয়ালের। এই অনিশ্চয়তা কাটিয়ে রাজ্য সরকার জানিয়ে দিয়েছিল ১ জুন থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুটিং শুরু করা যাবে। কীভাবে, কোন পদ্ধতি মেনে শুটিং হবে, তা নিয়ে কয়েকদিন ধরেই নানান বৈঠক চলছিল। চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছনো গেল বৃহস্পতিবারের বৈঠকে। তবে, ১০ জুন থেকে ধারাবাহিকের শুটিং শুরুর সিদ্ধান্ত হলেও সিনেমার শুটিং কবে থেকে আরম্ভ হবে, তা ঠিক হবে সব পক্ষকে নিয়ে রবিবারের বৈঠকে। যেহেতু সিনেমার শুটিং অনেক সময়েই স্টুডিও–‌র বাইরে অন্য লোকেশনে হয় এবং আউটডোরে যেতে হয়, তাই সেক্ষেত্রে সুরক্ষাবিধি নিয়ে আরও কিছু নিয়ম–‌নীতি দরকার। সেটা নিয়ে রবিবার আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে, মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস জানালেন, নিয়মবিধি ঠিক হয়ে গেলে ১০ জুন থেকেই শুরু হতে পারে সিনেমার শুটিংও। তবে, এনিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে রবিবার।
সরকারি নির্দেশ অনুযায়ী শিল্পী, কলাকুশলী–‌সহ এক একটি শুটিং ইউনিটে ৩৫ জনের বেশি মানুষ থাকতে পারবেন না। এটা আগেই ঠিক ছিল। এদিন যে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তগুলি নেওয়া হয়েছে, তার মধ্যে আছে প্রত্যেকের জন্য ২৫ লাখের কোভিড জীবন‌বিমা। কোভিড বা করোনায় আক্রান্ত হয়ে কোনও শিল্পী বা কলাকুশলীর মৃত্যু হলে, তাঁর পরিবার ২৫ লাখ টাকা পাবেন। এই জীবনবিমার প্রিমিয়াম টেকনিশিয়ানদের ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ দেবেন প্রযোজক এবং ৫০ শতাংশ দেবেন চ্যানেল কর্তৃপক্ষ। শিল্পীদের ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ চ্যানেল কর্তৃপক্ষ, ৪০ শতাংশ প্রযোজক পক্ষ এবং ১০ শতাংশ প্রিমিয়াম দেবেন শিল্পী নিজে। এবং করোনায় অসুস্থ হয়ে পড়লে প্রত্যেকের চিকিৎসার দায়িত্ব নেবে রাজ্য সরকার।
শুটিংয়ের জন্য বেশ কয়েকটি নিয়মকানুন তৈরি হয়েছে। স্টুডিওয় ঢোকার সময় প্রতিটি শিল্পী, কলাকুশলীকে ‘‌থার্মাল গান’‌ দিয়ে পরীক্ষা করে দেখা হবে তাঁর জ্বর আছে কিনা। স্টুডিওয় প্রতিটি ইউনিটে একজন পর্যবেক্ষক থাকবেন, যিনি দেখবেন কেউ সর্দি, কাশিতে আক্রান্ত কিনা। সেক্ষেত্রে ‌শুটিংয়ের জন্য বেশ কয়েকটি নিয়মকানুন তৈরি হয়েছে। স্টুডিওয় ঢোকার সময় প্রতিটি শিল্পী, কলাকুশলীকে ‘‌থার্মাল গান’‌ দিয়ে পরীক্ষা করে দেখা হবে তাঁর জ্বর আছে কিনা। স্টুডিওয় প্রতিটি ইউনিটে একজন পর্যবেক্ষক থাকবেন, যিনি দেখবেন কেউ সর্দি, কাশিতে আক্রান্ত কিনা। সেক্ষেত্রে ‌শুটিংয়ের জন্য বেশ কয়েকটি নিয়মকানুন তৈরি হয়েছে। স্টুডিওয় ঢোকার সময় প্রতিটি শিল্পী, কলাকুশলীকে ‘‌থার্মাল গান’‌ দিয়ে পরীক্ষা করে দেখা হবে তাঁর জ্বর আছে কিনা। স্টুডিওয় প্রতিটি ইউনিটে একজন পর্যবেক্ষক থাকবেন, যিনি দেখবেন কেউ সর্দি, কাশিতে আক্রান্ত কিনা।

 

এনটিওয়ান স্টুডিওতে প্রস্তুতি। বৃহস্পতিবার। ছবি: সুপ্রিয় নাগ

জনপ্রিয়

Back To Top