আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ তাঁর শেখানো ‘‌এক দো তিন’‌–এর তালেই অসমুদ্রহিমাচলের মন মাতিয়েছিলেন মাধুরী। ‘‌নও নও চুড়িয়া’‌ বাজিয়েছিলেন শ্রীদেবী। সেই ‘‌মাস্টারজি’‌ সরোজ খান চলে গেলেন। বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন তিনি। বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। 
২০ জুন শ্বাসকষ্টের কারণে মুম্বইয়ের গুরু নানক হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন  এই কোরিওগ্রাফার। পরিবারের সূত্রে জানা যায়, কোভিড টেস্ট করানো হয় সরোজের। রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। যদিও কোভিডের কোনও লক্ষণ ছিল না তাঁর। চিকিৎসকরা জানান, ঠান্ডা লেগেই শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল। গত সপ্তাহেই তাঁর ভাইপো মণীশ জগওয়ানি জানিয়েছিলেন, সুস্থ হয়ে উঠছেন সরোজ। শিগগিরই হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে তাঁকে। কিন্তু সেই বাড়ি ফেরা আর হল না। 
প্রায় ৪০ বছর ধরে বলিউডের সঙ্গে জড়িত ছিলেন তিনি। দু’হাজারেও বেশি গানে কোরিওগ্রাফি করেছেন। ১৯৭৪ সালে ‘গীতা মেরা নাম’ ছবিতে কোরিওগ্রাফির মাধ্যমে বলিউডে হাতেখড়ি। তিন বার জাতীয় পুরস্কার পেয়েছন সরোজ। এর পর কাজ করেছেন একের পর এক ছবিতে। ‘‌মিস্টার ইন্ডিয়া’‌, ‘‌চাঁদনি’‌, ‘‌নাগিনা’‌, ‘‌বেটা’‌, ‘‌তেজাব’‌–এর মতো ছবিতে শ্রীদেবী, মাধুরীকে নাচিয়েছেন নিজের তালে। ‘‌ধক ধক করনে লাগা’‌ গানে মাধুরীর সেই আবেদন, নাচ— সবের নেপথ্যে তিনিই। 
 ২০১৯-এ ‘কলঙ্ক’ ছবিতে মাধুরী দীক্ষিতের গানে শেষ বারের মতো কোরিওগ্রাফি করেছিলেন তিনি। তাঁর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন অক্ষয় কুমার, কুণাল কোহলি, অভিনব সিনহা, নিমরত কৌররা। অক্ষয় লিখেছেন, ‘‌সরোজ একটা নাচকে খুব সোজা করে দিতে পারতেন। মনে হত, সে কেউ পারবে নাচটা করতে।’‌
 

জনপ্রিয়

Back To Top