‌(বড় পর্দায় আসছে এক ব্যতিক্রমী জুটি। কাঞ্চন মল্লিকের সঙ্গে সেই জুটি ঋতুপর্ণার। আর এই প্রায় অসম্ভব কাণ্ডকে সম্ভব করলেন হরনাথ চক্রবর্তী তাঁর ‘‌ধারা স্নান’‌ ছবিতে।)
সৌগত চক্রবর্তী: কাঞ্চন মল্লিক ছবির নায়ক। আর তাঁর বিপরীতে নায়িকা ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। তার ওপর এই ছবি কমেডি নয়। আদ্যন্ত সিরিয়াস একটি ছবি। শুনতে একটু অসম্ভব লাগলেও এমন একটা ঘটনা সম্ভব করে তুলেছেন হরনাথ চক্রবর্তী। তাঁর নতুন ছবি ‘‌ধারা স্নান’‌-‌এ ঋতুপর্ণার সঙ্গেই জুটি বেঁধেছেন কাঞ্চন।
‘‌চলো পাল্টাই’‌ থেকেই নিজের ছবির ধাঁচ পরিবর্তন করে চলেছেন হরনাথ। প্রসেনজিৎ ও দেবদানকে নিয়ে নিজের প্রচলিত ছক থেকে বেরিয়ে একটু অন্য ধাঁচের ছবি তৈরি করেছিলেন হরনাথ। তবে সে ছবি সাহিত্য নির্ভর ছিল না। পরের ছবি ‘‌ছায়াময়’‌-‌তে সাহিত্য নির্ভর হয়েছিলেন হরনাথ। শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের একই নামের উপন্যাসকে ছবিতে এনেছিলেন তিনি। এবার আরও একবার সাহিত্যকে অনুসরণ করলেন তিনি। উল্লাস মল্লিকের একই নামের উপন্যাস নিয়ে তৈরি করলেন ‘‌ধারা স্নান’‌।
কেন এই সাহিত্য নির্ভরতা?‌ হরনাথ জানালেন, ‘‌ইদানীংকালে বাংলা ছবির সাফল্য নির্ভর করে গল্পের ওপর। গল্প যদি ইউনিক হয়, চিত্রনাট্য যদি ভাল হয়, পরিচালনা যদি ঠিক হয়, তাহলে সেই ছবি জনপ্রিয় হবেই।’‌ জানালেন, ‘‌এক সাধারণ বিবাহিত মেয়ের একটা জার্নির গল্প নিয়ে এই ছবি। মফস্‌সল শহরের মেয়ে। দৈনন্দিন জীবন যাপনে বিপর্যস্ত। তার স্বামীও দুর্বল চিত্তের মানুষ। 
ভীরুও। সেই জায়গাটা থেকে মেয়েটি সমস্ত প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে লড়াই শুরু করে। মেয়েটির চরিত্রে প্রথম থেকেই মাথায় ছিল ঋতুপর্ণার নাম। আর তার বিপরীতে কাঞ্চন এই চরিত্রে খুবই মানানসই। উপন্যাসের বর্ণনা অনুযায়ীই এই ছবিতে কাঞ্চনের সংযোজন।’‌
এই ছবিতে ঋতুপর্ণা অভিনয় করেছেন তমসার ভূমিকায়। এক সময়ে পরমব্রতর সঙ্গে ভালবাসার সম্পর্ক ছিল তার। কিন্তু একটা চক্রান্তের ফলে তমসা বিয়ে করতে বাধ্য হয় শান্তশীলকে। এই চরিত্রেই অভিনয় করেছেন কাঞ্চন। আর এই বিয়েটাও হয় অদ্ভুত ভাবে। যে ছেলেটিকে বিয়ের আগে তমসাকে দেখানো হয়েছিল হবু স্বামী বলে, যে আদৌ শান্তশীল নয়। ফলে বিয়ের সময় শান্তশীলকে দেখে অবাক হয়ে যায় তমসা। স্বামীকে পাশে রেখেই তার নতুন লড়াই শুরু করে তমসা। জড়িয়ে পড়ে ক্ষমতার লড়াইয়ে। ব্যবসায়ী হরগোবিন্দর সঙ্গে হাত মিলিয়ে তার হয়ে অনৈতিক কাজ করতে শুরু করে তমসা। শেষে একটা জমির কেনা-‌বেচা নিয়ে ভূমিকার সঙ্গে সংঘাত শুরু হয় তমসার। আর এখানেই গল্পে আসে নাটকীয় মোড়।
কাঞ্চন জানালেন, ‘‌আমাকে তো সবাই কমেডি চরিত্রেই নেন। এমন একটা চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ দেওয়ার জন্যে আমি হরনাথদার প্রতি কৃতজ্ঞ। এই ছবিতে আমার সংলাপ হয়তো ২০টা। কিন্তু পুরো ছবিতেই অভিব্যক্তি ও দৈহিক ভাষায় অভিনয় করতে হয়েছে। এটা নিঃসন্দেহে একটা চ্যালেঞ্জ।’‌
ছবিতে হরগোবিন্দর চরিত্রে অভিনয় করেছেন বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী। আর ভূমিকার চরিত্রে আছেন দিশা। এছাড়াও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাহেব চট্টোপাধ্যায়, রাজেশ শর্মা, সুমন্ত মুখোপাধ্যায়, শ্রীলা মজুমদার। ইজেল এন্টারটেনমেন্টের প্রযোজনায় ‘‌ধারা স্নান’‌ মুক্তি পাবে ফেব্রুয়ারিতে।‌

জনপ্রিয়

Back To Top