‌বিনোদনের প্রতিবেদন:‌ বাংলা ছবির ১০০ বছরকে সেলাম জানিয়ে পরিচালক অরিন্দম শীল শেষ করলেন তাঁর নতুন ছবি ‘‌মায়াকুমারী’‌র শুটিং পর্ব। ১৯৪০ সালের প্রেক্ষাপটে তৈরি এই ছবির মুখ্য চরিত্র মায়াকুমারীর ভূমিকায় আছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। আর তাঁর বিপরীতে কাননকুমার-‌এর ভূমিকায় আছেন আবির চট্টোপাধ্যায়। এর সঙ্গে আবির অভিনয় করেছেন কাননকুমারের নাতি আহিরের ভূমিকাতেও।
ছবির গল্পে ১৯৪০ সালের এক সাড়া জাগানো নায়িকা হলেন মায়াকুমারী। যিনি কেরিয়ারের শীর্ষে থাকতে ‌থাকতেই হঠাৎ ছবির জগত ছেড়ে চলে যান। এখানেই প্রশ্ন, অরিন্দম শীল কি বিশেষ কাউকে মাথায় রেখেই এই ছবির চিত্রনাট্য তৈরি করেছেন?‌
কী বলছেন অরিন্দম শীল?‌ ‘‌এই মায়াকুমারী সম্পূর্ণ কাল্পনিক একটি চরিত্র। কোনও একজন নায়িকাকে মাথায় রেখে এই চরিত্র সৃষ্টি করা হয়নি’‌, বললেন অরিন্দম। বললেন, ‘‌যেহেতু এই ছবি বাংলা ছবির ১০০ বছরকে মাথায় রেখে, তাই এই সময়কালের বাংলা ছবির বিভিন্ন নায়িকাকে মাথায় রেখেই এই চরিত্র সৃষ্টি হয়েছে। যেমন, যদি বলা যায়, প্রথম কোন নায়িকা চুম্বন দৃশ্যে অভিনয় করেছিলেন?‌ উত্তর আসবে দেবীকারানি। আবার যদি প্রশ্ন করা হয় খ্যাতির শীর্ষে থাকতে থাকতে কোন অভিনেত্রী ফিল্ম জগৎ থেকে সরে গিয়েছিলেন, তাহলে উত্তর আসবে সুচিত্রা সেন। এইভাবেই বিভিন্ন বাস্তব চরিত্রের নানা ছোঁয়া আছে এই মায়াকুমারীর চরিত্রে।’‌ এছাড়াও এই ছবিতে এসেছে কানন দেবী,বীরেন সরকার, প্রমথেশ বড়ুয়া প্রমুখের উল্লেখ।
অনিন্দম শীল জানালেন এই ছবি হয়ে উঠেছে একটা মিউজিক্যাল ছবিও। ‘‌ছবিতে আছে মোট ১২টি গান। সব গানের কথা ও সুরই সেই সময়কার সঙ্গীত জগৎকে মনে করিয়ে দেয়। ১৯৪০-‌এর গানের সেই ধারাকে এই ছবিতে ধরেছেন সঙ্গীত পরিচালক বিক্রম ঘোষ।
সম্প্রতি ছবির শেষ শুটিং হয়ে গেল নন্দন প্রেক্ষাগৃহে। কিন্তু প্রশ্ন, ছবি যদি হয় ১৯৪০-‌এর দশককে মাথায় রেখে এবং সেই ছবিতে অতীতের শুটিং ভাবনা থেকে সবকিছুই ডিটেলসে ধরা হয়, তাহলে কেন আজকের প্রেক্ষাগৃহ নন্দনে এই ছবির শেষ দৃশ্যের শুটিং হল?‌ অরিন্দম শীল জানালেন, ‘‌তার জন্য ছবিটা দেখতে হবে। তাহলেই মিলবে এই রহস্যের উত্তর।’‌
আসলে কেন মায়াকুমারী হঠাৎ সরে গিয়েছিলেন সিনেমার জগৎ থেকে?‌ নায়ক কাননকুমার ও মায়াকুমারীর এক চুম্বন দৃশ্য নিয়ে যে সমালোচনা হয়েছিল তার কারণে?‌ সেই প্রশ্নেরই উত্তর খুঁজতে নামছেন একালের এক পরিচালক সৌমিত্র মল্লিক। এই চরিত্রে অভিনয় করছেন ইন্দ্রাশিস রায়। আসলে ছবির মধ্যে ছবি। মায়াকুমারীর স্বামী শীতল ভট্টাচার্যর ভূমিকায় এই ছবিতে অভিনয় করেছেন রজতাভ বন্দ্যোপাধ্যায়। এছাড়াও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন অরুণিমা ঘোষ, সৌরভ দাস, অনিন্দিতা বসু। ছবির গানগুলি লিখেছেন শুভেন্দু দাশমুন্সি। ছবিটি মুক্তি পাবে এপ্রিলে।

নন্দনে শেষ দিনের শুটিংয়ে ঋতুপর্ণা ও আবির। পরিচালকের সঙ্গে ঋতুপর্ণা ও অরুণিমা। ছবি:‌ সুপ্রিয় নাগ

জনপ্রিয়

Back To Top