বিনোদনের প্রতিবেদন:‌ বাংলা ছবিতে ভূতের গল্প এমনিতেই বিরল। তার ওপর জাতিস্মরের কাহিনী নিয়ে ছবি তো আরও বিরল। ‘‌ক্ষধিত পাষাণ’‌, ‘‌সোনার কেল্লা’ বা হাল আমলের ‘‌জাতিস্মর’‌ ছাড়া আর কোথায়ই বা এসেছে এই ধরনের গল্প। এবার ভূত আর জাতিস্মরকে একসঙ্গে মিলিয়ে দিলেন নতুন পরিচালক জুটি মীনাক্ষী আর অভিষেক। ছবির নাম ‘‌কুয়াশা যখন’‌।
ছবির মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করছেন গার্গী রায়চৌধুরি। কী চরিত্র সে সম্পর্কে বলতে রাজি নন অভিনেত্রী বা পরিচালক জুটি—কেউই। শুধু জানা গেছে বেশ রহস্যজনক এই ছবি।‌‌ সেই ১৯৬০-‌এ পরিত্যক্ত হয়ে যাওয়া এক জমিদার বাড়ি। আর সেই বাড়িরই প্রতিটি অন্ধকার কোণে জেগে থাকে গা ছমছম করা রহস্য। কী সেই রহস্য?‌ তাই নিয়েই এই ছবির গল্প।‌ অন্যতম পরিচালক মীনাক্ষী জানালেন, দুটি ভিন্ন সময়ের প্রেক্ষিতে বলা হয়েছে এই গল্প। ১৯৬০-‌এর প্রেক্ষিতে শুরু হয়ে এই গল্প পৌঁছে যাবে সমকালীন সময়ে। আর এই দুই গল্পকে মেলানো হয়েছে একটা সূত্র ধরে।
আর এক পরিচালক অভিষেক জানালেন,‌ ‘‌সেই পরিত্যক্ত ভূতুড়ে জমিদার বাড়িতে থাকেন দুই ভাই। কিন্তু সেখানে কোনও মহিলা থাকতে পারেন না। কারণ, কোনও না কোনওভাবে মৃত্যু হয় সেই মহিলার। বহুদিন অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে থাকা সেই বাড়ির রহস্য সমাধান করতে এবার এলেন এক প্রেতচর্চাকারী মহিলা। এরপর ঘটনার গতি বাঁক নিল কোনদিকে?‌’‌
ছবিতে গার্গী ছাড়াও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন ঋষভ, অনিন্দ্যপুলক বন্দ্যোপাধ্যায়, শতাফ ফিগর, মানালি দে, সুদেষ্ণা রায়, ভূমির সৌমিত্র রায় প্রমুখ। ‌মুক্তি পেল এই ছবি।

জনপ্রিয়

Back To Top