সৌগত চক্রবর্তী: • অনেকদিন পর আবার তাহলে টেলিভিশনে ফিরলেন?‌
•• হ্যঁা, প্রায় চার বছর পর। এর আগে কালার্স বাংলারই একটা গেম শো ‘‌চকাচক কমেডি চক’‌ করেছিলাম।
• এই যে গেম শো ‘‌অদল বদল’ এর কনসেপ্টটা কীরকম?‌
•• ধরুন, বাড়িতে কোনও জিনিস খারাপ হয়ে গেছে। কিন্তু এক্ষুণি সেটা নতুন করে কেনা আর সম্ভব নয়। ধরুন একটা টিভি। এই শোয়ে যাঁরা প্রতিযোগী তাঁরা সেই পুরনো টিভিটিকে বাজি ধরলেন। তাঁকে কিছু প্রশ্ন করা হল। তিনি যদি সঠিক উত্তর দেন, তাহলে নতুন একটা টিভি সেট তাঁকে উপহার দেওয়া হবে।
• এরকমই একটা শো ‘‌জনতা এক্সপ্রেস’‌ দিয়ে আপনার উত্থান। কীরকম অনুভূতি আপনার?‌
•• দারুন, দারুন। এই ‘‌জনতা এক্সপ্রেস’‌ দিয়েই‌ তো ‘‌কাঞ্চন এক্সপ্রেস’‌-‌এর যাত্রা শুরু হয়েছিল। তবে এটা মনে রাখতে হবে ‘‌জনতা এক্সপ্রেস’‌ ছিল আমজনতার শো। এই শো-‌য়ে কোনও সেলিব্রিটি ছিলেন না। পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন এলাকায় এই শো নিয়ে হাজির হতাম আমি। সেই জনপ্রিয়তার আঁচ আজও যেন পাই।
• ‘‌অদল বদল’ও তো আমজনতার শো।
•• হ্যঁা, আমরা এই শো নিয়ে আবার পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে সাধারণ মানুষের মধ্যে চলে যাব। আর এই শো উপলক্ষেই এই প্রথমবার আমি গান গাইলাম। দিব্যেন্দুর সঙ্গীত পরিচালনায় গেম শো-‌এর টাইটেল ট্র‌্যাকটা গেয়েছি। এটা একটা র‌্যাপ সং। কেমন হয়েছে আপনারাই বলবেন।
• ‘‌অদল বদল’-‌এর পাশাপাশি তো আপনি তো বড়পর্দার ‘‌টেনিদা’ও বটে।
•• হ্যঁা, সায়ন্তন ঘোষালের পরিচালনায় এই ছবির নাম ‘‌টেনিদা অ্যান্ড কোং’‌। নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়ের ‘‌ঝাউবাংলোর‌‌‌ রহস্য’‌ অবলম্বনে এই ছবি। দার্জিলিং, টাইগার হিল, স্যনিটারিয়াম, সবুজ দাড়ি, কুণ্ডুমশাই, নীলপাহাড়ি, জাপানি দস্যু কাগামাছি—সব মিলিয়ে একটা জমজমাট থ্রিলার।
• নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়ের উপন্যাস কে পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে কিছু পরিবর্তন হয়েছে কি?‌
•• একদম নয়। গল্পটা একই আছে। তবে কালটা সময়োপযোগী করা হয়েছে। আর সেই প্রয়োজনে কিছু নতুন চরিত্র এসেছে।
• এই চরিত্রে তো আগে চিন্ময় রায় ও শুভাশিস মুখোপাধ্যায় অভিনয় করেছিলেন।
•• দুজনেই দক্ষ অভিনেতা। ‘‌টেনিদা’‌ চিন্ময় রায়ের ‘‌চারমূর্তি’‌ তো আমার প্রিয় ছবি। শুভাশিসদাও টেনিদা হিসেবে দারুন। তাই বুকটা একটু দুরদুর করছে। আসলে একে তো সাহিত্য হিসেবে তুমুল জনপ্রিয়। আমরা সবাই এতবার টেনিদা পড়েছি, পড়তে পড়তে টেনিদার একটা কল্পিত রূপ চোখের সামনে ভেসে উঠেছে। কাজেই চিন্ময় রায় আর শুভাশিস মুখোপাধ্যায়কে ছাপিয়ে যাওয়ার একটা জেদও কাজ করছে।
• এই চরিত্রটায় অভিনয়ের সুযোগ পেয়ে এমনিতে কেমন লাগছে?‌
•• এ তো ভাললাগারই কথা। একে তো ‘‌টেনিদা’ চরিত্র হিসেবে আমাদের সবারই প্রিয়। তার ওপর ছোটবেলায়‌ আমার চেহারা দেখে আমার বন্ধুরা আমায় টেনিদার সঙ্গে তুলনা করত। বিশেষ করে ‘‌চারমূর্তি’‌ ছবিটা মুক্তি পাওয়ার পর। কাজেই সত্যি বলতে কি, এই চরিত্রে অভিনয় করার একটা বাসনা আমার মধ্যে ছিলই। বলা যায় স্বপ্নটা সত্যি হল।

জনপ্রিয়

Back To Top