আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ স্বস্তির খবর। করোনা নেগেটিভ হলেন অভিষেক বচ্চন। এক এক করে এবারে বচ্চন পরিবারের সকলেই করোনামুক্ত হয়ে উঠলেন। 
শনিবার দুপুর আড়াইটে নাগাদ অভিষেক বচ্চন নিজে টুইটারে পোস্ট করলেন, ‘‌প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম। আমি এই ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করবই। আজ দুপুরে আমার করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। আমার এবং আমার পরিবারের জন্য প্রার্থনা করার জন্য সবাইকে অনেক ধন্যবাদ। একইসঙ্গে নানাবতী হাসপাতালের সমস্ত চিকিৎসক ও নার্সদের আমার কৃতজ্ঞতা জানাই। তাঁরা যা করেছেন, তা অতুলনীয়।’

 

 

এর আগে ২ আগস্ট হাসপাতাল থেকে মুক্তি পেয়েছিলেন অমিতাভ বচ্চন। বাবার করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসার কথা অভিষেকই টুইট করে জানিয়েলেন।
জুলাই মাসে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মুম্বইয়ের নানাবতী হাসপাতালে ভর্তি হন বিগ বি। সেই রাতেই জানা যায় করোনা থাবা বসিয়েছে ছেলে অভিষেকের শরীরেও। তাঁকেও একই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেই সঙ্গে কোভিড পরীক্ষা হয় বাড়ির অন্যান্য সদস্যদেরও। সঙ্গে ৩০ জন কর্মীকেও আইসোলেট করা হয়। জয়া বচ্চন, ঐশ্বর্য ও আরাধ্যার প্রথমে র‌্যাপিড টেস্ট রিপোর্ট নেগেটিভ এলেও দ্বিতীয় সোয়াব টেস্টের রিপোর্টে জানা যায় মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত মা ও মেয়ে উভয়েই। জয়া বচ্চনের রিপোর্ট অবশ্য নেগেটিভ আসে। উপসর্গহীন করোনা রোগী হওয়ায় প্রথমে ঐশ্বর্য ও আরাধ্যাকে হোম আইসোলেশনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়। কিন্তু শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটনায় তাঁদেরও পরে নানাবতীতে ভর্তি করতে হয়। উদ্বেগ বাড়ে অনুরাগীদের। কিন্তু ১০ দিনের মাথাতেই করোনা মুক্ত হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন মা ও মেয়ে। তখন টুইটারে অভিষেক বচ্চন বলেছিলেন, ‘‌আপনাদের প্রার্থনা আর শুভকামনা এভাবেই যেন আমাদের সঙ্গে থাকে। সৌভাগ্যবশত ঐশ্বর্য আর আরাধ্যার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। ওদের হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এখন ওরা বাড়িতেই থাকবে। তবে আমি আর বাবা আপাতত হাসপাতালেই থাকব।’‌  

 

জনপ্রিয়

Back To Top