বিনোদনের প্রতিবেদন:‌ বিজ্ঞান ও রাজনীতি। আবিষ্কার আর গণ–‌হিস্টিরিয়া। সত্য বনাম জনমত।
এই সব দ্বন্দ্ব নিয়েই অশোকনগর নাট্য আননের নতুন নাটক ‘‌অপবিত্র’‌। জেরোম লরেন্স–‌এর মূল নাটক থেকে যারা বাংলা নাট্যরূপ তৈরি করেছেন অভিনেতা চন্দন সেন। পরিচালনাও তাঁর।
এই নাটকের কেন্দ্রবিন্দু চার্লস ডারউইনের ‘‌থিওরি অফ ইভোলিউশন’‌। যাকে গত শতকের গোড়ায়ও ‘‌অপবিত্র’‌ আর বাইবেল–‌বিরোধী বলে মনে করত বেশ কিছু মানুষ। এমন বিশ্বাসের বশবর্তীদের দ্বারা অধ্যুষিত এক জনপদে এ নাটকের ঘটনাক্রমের সূচনা। আমেরিকার হিলস্‌বোরোতে। সময়কাল ১৯২৬।
এক অধ্যাপককে ধরে আনা হয়েছে বিচারালয়ে ডারউইন–‌এর ওই থিওরি পড়ানোর জন্য। এক জবলদস্ত উকিল তার বিপক্ষে। কিন্তু তার চেয়েও বেশি ভয়ের বিচারলয় ঘিরে থাকা একদল ধর্মোন্মাদ খুনে জনতা। যারা ওই অধ্যাপকের মৃত্যু চায়। এমন সময় ওই শহরে বিচারের আসরে হাজির হয় দুজন। একজন উকিল, যে আসে অধ্যাপকের পক্ষ নিতে। অন্যজন এক সাংবাদিক, যে আসে এই খবর ‘‌কভার’‌ করতে।
এই কোর্টরুম ড্রামার সুবাদে মঞ্চে একসঙ্গে পাওয়া যাবে চার দাপুটে অভিনেতাকে— সব্যসাচী চক্রবর্তী, অসিত বসু, শান্তিলাল মুখোপাধ্যায় ও চন্দন সেনকে। একটি চরিত্রে আছেন তরুণ ঋতব্রত মুখোপাধ্যায়ও। নাটকের সঙ্গীত করেছেন গৌতম ঘোষ। আলো কল্যাণ ঘোষের।
এ নাটকের প্রথম শো কাল রবিবার আকাদেমি মঞ্চে। দু’‌বার

জনপ্রিয়

Back To Top