আজকালের প্রতিবেদন: কঠোর হাতে শহরে করোনা মোকাবিলায় ‘‌স্যাটেলাইট হোম’‌ তৈরির পরিকল্পনা রাজ্য সরকারের। মঙ্গলবার এ কথা জানিয়েছেন পুরপ্রধান প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। আবার পুরপ্রধান প্রশাসক শহরবাসীকে মাস্ক ব্যবহার এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার আবেদন জানান। তিনি বলেন, ‘‌শহরে সেফ হোম তৈরির জন্য জায়গার খোঁজ চালানো হচ্ছে। বাইরে থেকে কলকাতায় চিকিৎসার জন্য অনেকেই আসছেন। হাসপাতলে জায়গার সমস্যা তৈরি হচ্ছে। এই সমস্যা সমাধানে হাসপাতালগুলি নিয়ে একটি পোর্টালও তৈরির ভাবনা রয়েছে রাজ্য সরকারের।’‌
এদিন কলকাতার বর্তমান করোনা পরিস্থিতি নিয়ে পুুরভবনে পুরপ্রধান প্রশাসক ফিরহাদ হাকিমের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসেন স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠকের পর স্বরাষ্ট্র সচিব স্যাটেলাইট হোমের পরিকল্পনার কথাও জানান। সাংবাদিকদের তিনি জানান, স্যাটেলাইট হোম তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে । যেখানে ‘‌সেফ হোম’‌এর পরিষেবা মিলবে। তবে বিনামূল্যে নয়। কলকাতা পুরসভার সহযোগিতায় রাজ্য সরকার গড়বে এই হোম। একই সঙ্গে পুর কন্ট্রোল রুমে আরও তথ্য দিয়ে সমৃদ্ধ করা হবে। মূলত রাজ্য সরকার, কলকাতা পুরসভা, স্বাস্থ্য দপ্তর,পুলিশের মধ্যে সমন্বয় বজায় রেখে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। এই সমন্বয়কে আরও সুদৃঢ় করে তুলতে এই বৈঠক। কলকাতা পুরসভার কন্ট্রোল রুমকে আরও কীভাবে কার্যকর করা যায় তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সেফ হোম এবং ইনস্টিটিউশনাল কোয়ারেন্টাইন সেন্টার বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে। সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালগুলির মধ্যে সমন্বয় গড়ে তুলতে একটি কমন ওয়েব পোর্টাল তৈরি করা হবে। রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর ও কলকাতা পুরসভার যৌথ সমন্বয়ে একটি ওয়েব পোর্টাল তৈরি করা হবে। যেখানে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালগুলোর পরিস্থিতির ওপর নজর রাখা যাবে। হাসপাতালগুলির কোথায় কত শয্যা ফাঁকা হচ্ছে, বর্তমান পরিস্থিতি সবই এই পোর্টালের মাধ্যমে নজর রাখা যাবে। কনটেন্ট জোনগুলিতে আরও কড়াকড়ি নজর রাখতে হবে। কলকাতা পুলিশ এবং পুরসভার সহযোগিতায় করোনা সুরক্ষাবিধি নিষেধ মানা হচ্ছে কিনা সেই নিয়ে নজরদারি চালানোর বিষয়েও কথা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘‌মাস্ক ব্যবহার এখন শুধু আর সুরক্ষাবিধি নয়। আমাদের জীবনের একটি অভ্যাসে পরিণত করতে হবে। সেজন্য সকলকে সতর্ক হতে হবে।’‌ নোডাল অফিসার হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর এই প্রথম পুরসভায় এসে করোনা নিয়ে রিভিউ মিটিংয়ে অংশ নিলেন স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন পুর কমিশনার বিনোদ কুমার–সহ কলকাতাপুরসভা ও কলকাতা পুলিশের আধিকারিকরা।   পুরসভা সূত্রে জানা গেছে, মূলত সামান্য উপসর্গ কিংবা উপসর্গহীন করোনা আক্রান্তদের জন্য সেফ হোমের আদলে তৈরি হবে এই স্যাটেলাইট হোম। তবে এই স্যাটেলাইট হোমে পরিষেবার খরচ বহন করতে হবে নাগরিকদের।‌

জনপ্রিয়

Back To Top