মিল্টন সেন, হুগলি: পোলবা থানার কাশ্বরা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা সৌমী সাহা (‌৩৬)–র‌ মৃত্যু হল করোনায়। চন্দননগরের মুন্সিপুকুর এলাকার বাসিন্দা সৌমীদেবী হুগলি জেলা তৃণমূল প্রাথমিক শিক্ষক সংসদের সক্রিয় সদস্য ছিলেন। সংগঠনের তরফে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন সৌমী। তাঁকে কোনও দিন কোনও ভারী কাজ করতে দেওয়া হত না। সম্প্রতি শ্বাসকষ্টের সেই সমস্যা প্রকট হয়ে ওঠে। দিন চারেক আগে তাঁকে চন্দননগর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাঁর কোভিড পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তারপরেই তাঁকে স্থানান্তরিত করা হয় ব্যান্ডেল ইএসআই হাসপাতালে। মঙ্গলবার সকাল ১০টা নাগাদ সেখানেই মৃত্যু হয় শিক্ষিকার।
দিন ২৫ আগে লকডাউন চলাকালীন বিয়ে করেন সৌমী। স্বামী দিল্লিতে থাকতেন। শিক্ষক সংসদের সক্রিয় কর্মীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন সংগঠনের সভাপতি মনোজ চক্রবর্তী। তিনি বলেন, ‘‌দল এবং শিক্ষক সংগঠনের এক সক্রিয় কর্মীকে হারালাম। বরাবরই সংগঠনের তরফে আয়োজন করা নানা অনুষ্ঠানে সক্রিয় ভূমিকা পালন করতেন সৌমী। তাঁর মর্মান্তিক এই মৃত্যুতে শিক্ষক সংগঠনের অপূরণীয় ক্ষতি হল।’‌ তিনি আরও জানান, শিক্ষিকার বাড়িতে বাবা নারায়ণ সাহাও করোনা–আক্রান্ত। তাঁরও চিকিৎসা চলছে। এদিকে, করোনা–আক্রান্ত শ্রীরামপুর পুরসভার এক কর্মী। তাই পুরসভা ৭ দিনের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে। ২২ জুলাই থেকে অল্প কর্মী নিয়ে কাজ শুরু করবে পুরসভা। মঙ্গলবারই এ সংক্রান্ত নোটিস দিয়েছেন কর্তৃপক্ষ। আরও কয়েকজনের করোনা পরীক্ষা করাতে পাঠানো হয়েছে। গত কয়েক দিন ধরে শ্রীরামপুর পুরসভা এলাকায় বাড়ছে করোনা–আক্রান্তের সংখ্যা। ৪ নম্বর ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলর করোনা আক্রান্ত হয়ে বাইপাসের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি। এদিকে, করোনা আতঙ্কে এদিন থেকেই বন্ধ রাখা হয়েছে কোন্নগরের কানাইপুর পোস্ট অফিস। এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, পরবর্তী আদেশ না হওয়া পর্যন্ত পোস্ট অফিস বন্ধ থাকবে। জানা গেছে, কানাইপুর নৈটি রোডের পাশে যে বাড়ির নীচতলা ভাড়া করে পোস্ট অফিসের কাজকর্ম হয়, ওই বাড়িরই বাসিন্দা এক চিকিৎসকের স্ত্রীর করোনা ধরা পড়েছে।                                         

জনপ্রিয়

Back To Top