আজকালের প্রতিবেদন: করোনা–আক্রান্ত ও মৃত্যু–আতঙ্কের মধ্যেই সামান্য স্বস্তি পেল রাজ্যবাসী। মঙ্গলবার দুপুরে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরলেন রাজ্যের প্রথম করোনা আক্রান্ত–সহ আরও দু’‌জন। লন্ডনফেরত আমলা–পুত্র, বালিগঞ্জের আবাসনের ব্যবসায়ী এবং স্কটল্যান্ড–ফেরত হাবড়ার তরুণীকে এদিন বেলেঘাটা আই ডি হাসপাতাল থেকে ছুটি দেওয়া হয়। আই ডি হাসপাতাল যে পদ্ধতি অবলম্বন করে সাফল্যের পথে এগিয়েছে, সেই পদ্ধতিই অন্যান্য হাসপাতালকে অনুসরণ করতে বলেছে স্বাস্থ্য দপ্তর।
সুস্থ হয়ে ওঠা এই ৩ জনের তৃতীয় বারের লালারস পরীক্ষার রিপোর্টও নেগেটিভ আসে সোমবার গভীর রাতে। ফলে তাঁদের করোনামুক্ত বলে চিহ্নিত করেন চিকিৎসকেরা। এদিন তাঁরা বাড়ি ফিরলেও ১৪ দিন তাঁদের হোম কোয়ারেন্টিনে থেকে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। তারপর ফের একবার নমুনা পরীক্ষা করে দেখা হবে। এই মুহূর্তে আরও ১৩ জন করোনা–আক্রান্তের চিকিৎসা চলছে আই ডি–তে। চিকিৎসকেরা আশাবাদী, তাঁরাও ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠবেন। 
সুস্থ হওয়া প্রথম জন হলেন রাজ্যের প্রথম আক্রান্ত লন্ডন থেকে আসা এক যুবক। তিনি ১৫ মার্চ ফেরার পর ১৭ তারিখ ভর্তি হন আই ডি–তে। দ্বিতীয় জন লন্ডন থেকে আসা যুবকের বাবা।
 তিনি ২১ মার্চ ভর্তি হন। তৃতীয় জন হলেন হাবড়ার তরুণী। যিনি স্কটল্যান্ডে পিএইচডি করছিলেন। তিনি ভর্তি হন ১৯ মার্চ। তরুণী জানান, চীন, ইতালিতে অনেকেই মারা যাচ্ছিলেন বলে প্রথমে তিনিও খুব ভয় পেয়েছিলেন। পরে চিকিৎসকেরা তাঁকে বোঝালে মন থেকে আতঙ্ক দূর হয়।  এখন তিনি অনেকটাই ভাল আছেন। স্বাস্থ্য দপ্তর থেকেও সহযোগিতা করা হয়।  
চিকিৎসক সূত্রে খবর, আক্রান্তদের জ্বর বেশি থাকলে প্যারাসিটামল, অ্যান্টিবায়োটিক হিসেবে অ্যাজিথ্রোমাইসিন দেওয়া হচ্ছে। হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ব্যবহার করা হচ্ছে। শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা কমে গেলে কিংবা শ্বাসকষ্ট হলে অক্সিজেন দেওয়া হচ্ছে। দৈনন্দিন খাবারে বেশি পরিমাণে প্রোটিনের মাত্রা বজায় রাখা হচ্ছে। শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর দিকেও নজর রাখছেন চিকিৎসকেরা। তাঁরা রোগীদের বেশি করে জল পান ও বিশ্রামের পরামর্শ দিচ্ছেন। পরিষ্কার–পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা আর একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক। রোগীর কাছে কারও আসা একেবারেই নিষিদ্ধ। রোগী যে ঘরে আছেন সেই ঘরের সমস্ত জিনিসপত্র যথাসময়ে ধোওয়া হচ্ছে। রোগীর ব্যবহৃত জিনিস থেকে অন্য কিছু যাতে সংক্রামিত না হয় সেদিকটিও বিশেষভাবে লক্ষ রাখছেন হাসপাতালের কর্মীরা। বারবার নমুনা পরীক্ষাও করা হচ্ছে।‌

জনপ্রিয়

Back To Top