কয়েকটি সরল প্রশ্ন আছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে। আচ্ছা, বলতে পারেন ‌প্রধানমন্ত্রী জাতীয় ত্রাণ তহবিল থাকতে হঠাৎ ‘‌পিএমকেয়ার্স’‌ নামে দাতব্য অছি পরিষদ গড়ার প্রয়োজন হল কেন?‌ এই তথাকথিত ‘‌কেয়ার্স’‌ থাকায় কী কী সুবিধে হল?‌ কোন আইনে এই অছি নথিবদ্ধ হল?‌ এর আইনি ধারা এবং উপধারা কি আমরা পড়ে নিতে পারব?‌ এই নথিভুক্তির জন্য এই লকডাউনের সময়েই সাব–‌রেজিস্ট্রার কি প্রধানমন্ত্রীর বাড়ি গিয়েছিলেন?‌ নাকি প্রধানমন্ত্রী তাঁর অফিসে গিয়েছিলেন?‌ কত তারিখে সই–‌সাবুদ হল?‌ এই অছি পরিষদের অফিসের ঠিকানা কী?‌ প্রধানমন্ত্রী নিজে চেয়ারম্যান, আছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, প্রতিরক্ষামন্ত্রী, অর্থমন্ত্রীও— আর কারা আছেন?‌ প্রধানমন্ত্রী এমন একটা অছি পরিষদে থাকতে পারেন?‌ স্বার্থের সঙ্ঘাত হয় না বুঝি?‌ এই তহবিলের খরচ কি কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল অডিট করবেন?‌ ওই তহবিলে টাকা দিয়ে ঢ্যঁাড়া পিটে প্রচার করা খুব কি জরুরি, যেমনটা করছেন আপনার ভক্ত অক্ষয়কুমার, পেটিএম–‌এর কর্ণধার বিজয়?‌ বিজেপি এই তহবিলে কত দিল জানতে খুব ইচ্ছে করছে, জানা যাবে কি?‌ পুঁজিপতিরা এই তহবিলে টাকা দিলে ১০০ শতাংশ কর ছাড় পেয়ে যাবেন, অন্যান্য ছাড় কী কী পাবেন?‌ বিপর্যয়ের দোহাই দিয়ে সেই কোম্পানি কর্মী ছাঁটাই করলে শাস্তি দেবেন তো?‌ দুর্জনে বলছে, এই তহবিলের টাকা ভবিষ্যতে সাংসদ–‌বিধায়ক কিনতে কাজে লাগবে, তেমনটা হবে না, প্রতিশ্রুতি দিতে পারবেন তো?‌ ইতিমধ্যেই জমা পড়ে যাওয়া টাকা পরিযায়ী শ্রমিকদের আশ্রয় দিতে ব্যবহার করা হল না কেন?‌ তা হলে কখন কাজে লাগবে?‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top