‌আইকন চাই। বিজেপি নেতারা ভাবেন, চাই তো বটে, পাই কোথায়?‌ ওঁদের প্রণম্য যঁারা সাভারকার ও গোলওয়ালকর, ইতিহাস খুব গোলমেলে। শুধু যে সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষের বীজ ছড়িয়ে গেছেন তা নয়। সেই বীজ থেকে ফসল পেয়েছে বিজেপি। দীনদয়াল উপাধ্যায়ের নামে যতই স্টেশন হোক বা অন্য কিছু, অনেকেই চেনেন না। মুশকিল, মুশকিল। আইকন চাই। বিস্ময়, মোহনদাস করমচঁাদ গান্ধীকেও আইকন বানানোর চেষ্টা হয়েছে। আজকের গেরুয়া নেতারা নাকি গান্ধীর যোগ্য উত্তরসূরি। স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, গান্ধীজির আসল উত্তরাধিকার বহন করছে বিজেপি। তঁার নীতি মেনে চলছে মোদির দল। যে–‌মানুষটা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির জন্য হাজার ঝঁুকি নিয়েছেন, অনশন করেছেন, তিনি কিনা বিজেপি–‌র আইডল। লোকে হেসে উড়িয়ে দেওয়ার পর, খোঁজ, খোঁজ। পাওয়া গেল সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলকে। দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর সঙ্গে নানা বিষয়ে মতবিরোধ ছিল, ঘটনা। কিন্তু প্যাটেল মনেপ্রাণে কংগ্রেস করতেন। ১৯৪৮ সালের ৩০ জানুয়ারি গান্ধীজিকে হত্যা করে নাথুরাম গডসে, যঁার সঙ্গে সঙ্ঘ পরিবারের যোগ স্পষ্ট। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সর্দার প্যাটেল কী করলেন?‌ নিষিদ্ধ ঘোষণা করলেন আরএসএস–‌কে। পৃথিবীর সর্বোচ্চ মূর্তি করা হল (‌দায়িত্বে চীনা সংস্থা!‌)‌, অনেক প্রচার হল, কিন্তু দঁাড়াচ্ছে না। শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জি। ইতিহাস বলছে, বাংলার মুসলিম লিগের সঙ্গে সরকারে ছিলেন শ্যামাপ্রসাদ। কলকাতা বন্দরের নামকরণ হতে পারে, তিনি অন্তত বাংলার আইকন হবেন না। ১ জুলাই দিলীপ ঘোষ তুলে ধরলেন ডাঃ বিধানচন্দ্র রায়ের মহত্ত্বকে। ‘‌বিকাশ পুরুষ’। বিধানচন্দ্র রায় বাংলার শ্রদ্ধেয় নেতা। কংগ্রেসি আজীবন। ছিনতাই করার চেষ্টা সফল হবে না।‌

জনপ্রিয়

Back To Top