‌ডিসকভারি চ্যানেলের বিখ্যাত অনুষ্ঠানের মোদি–‌পর্ব দেখানো হবে ১২ আগস্ট। সঞ্চালক খ্যাতনামা বেয়ার গ্রিলস। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে এক বিবৃতি প্রচারিত হল, স্বয়ং মোদির বয়ানে। ১৮০টি দেশে অনুষ্ঠানটির সম্প্রচারের আগে, ২৫ জুলাই প্রধানমন্ত্রী অনেক কথাই জানালেন। যা দেশবাসীর জানা ছিল না। বললেন, ‘‌বহু বছর ধরে আমি প্রকৃতির সঙ্গে সহবাস করেছি। দুর্গম পাহাড়ে, গভীর জঙ্গলে। তার দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব পড়েছে আমার জীবনে। কাজেই এই বিশেষ অনুষ্ঠানের ডাকে সাড়া দিয়েছি, জীবনের কথা বলার সুযোগ পেয়ে উৎসাহী হলাম।’‌ প্রধানমন্ত্রীর অনেক কীর্তির, ত্যাগের, ঘটনার সংবাদ বহুলপ্রচারিত। কিন্তু জানা ছিল কি,‌ তিনি দুর্গম পাহাড়ে দিন কাটিয়েছেন, গভীর জঙ্গলে দিন–‌রাত কাটিয়েছেন?‌ অনুষ্ঠানের কিছু অংশের ভিডিও ক্লিপ টুইট করেছেন বেয়ার গ্রিলস। দেখা যাচ্ছে, জলে–‌জঙ্গলে, বাহারি বোটে দুজন ঘুরে বেড়াচ্ছেন। শো ছিল নিশ্চয়। কিন্তু প্রশ্নটা উঠেছে এবং ফিরছে, শুটিংয়ের দিনটা ঘিরে। জিম করবেট পার্কে যেদিন শুটিং করছিলেন, সেদিনই পুলওয়ামায় জওয়ানদের বাসে হামলা করেছিল জঙ্গিরা, প্রাণ গিয়েছিল ৪০ জনের। শো–‌টি ১২ আগস্ট দেখানোর সময় বলে দেওয়া উচিত, ভাবুন কী দারুণ বন্যপ্রেমী, পুলওয়ামায় ভয়ঙ্কর ঘটনার পরের কয়েক ঘণ্টাও শুটিং করেছিলেন। ঘটনার চার ঘণ্টা পর এসেছিল তাঁর প্রতিক্রিয়া। এতটাই বন্যপ্রাণপ্রেমী, শুটিং থামাননি। ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে এত বড় ঘটনার কথা নিশ্চয় জানানো হয়েছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের পক্ষ থেকে। হয়ে থাকলে, গাফিলতির জন্য প্রথম বরখাস্ত হওয়ার কথা অজিত দোভালের। তাঁর ‘‌উন্নতি’‌ হয়েছে। ঘটনার দু’‌ঘণ্টা পরে তোলা ছবিতেও দেখা যাচ্ছে, প্রধানমন্ত্রী হাসিমুখে মজা করছিলেন। এজন্য বন্যপ্রাণপ্রেমীকে (‌দেশপ্রেমী তে বটেই)‌ আন্তর্জাতিক পুরস্কার দেওয়া উচিত। দেশবাসী গর্বিত হবেন। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top