নারী দিবসে বিশেষ বার্তায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, তিনি ও তাঁরা মহিলাদের সম্মান করেন, বিশেষ গুরুত্ব দেন। উদাহরণ দিয়েছেন। কেন্দ্রীয় সরকারে গুরুত্বপূর্ণ দুই মন্ত্রী মহিলা। সুষমা স্বরাজ ও নির্মলা সীতারামন। নির্মলার কথা বলতে গিয়ে অবশ্য কিছুদিন আগে ভুল তথ্য দিয়েছিলেন। বলেন, প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের দায়িত্বে এই প্রথম একজন মহিলা। এই প্রথম?‌ জানেন না, প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী এক সময়ে প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর দায়িত্বও সামলেছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ভুল তথ্য নিয়মিতই দিয়ে থাকেন, সুতরাং একটা ভুল নিয়ে বেশি কথা বাড়িয়ে লাভ নেই। ‘‌বিশেষ গুরুত্ব’‌ নিয়ে কথা হতে পারে। সুষমা স্বরাজ বিদেশমন্ত্রী। নিঃসন্দেহে গুরুত্বপূর্ণ পদ। কিন্তু বাস্তবে কী ঘটল গত পাঁচ বছরে?‌ শতাধিক দেশে গেলেন প্রধানমন্ত্রী। আমেরিকা, চীন, রাশিয়া, জার্মানি, ফ্রান্স— সব দেশের প্রধানদের সঙ্গে বৈঠক। চুক্তি। প্রকাশ্য ও গোপন বোঝাপড়া। কোথাও নেই বিদেশমন্ত্রী। প্রতিবেশী দেশগুলোর ক্ষেত্রেও একই ব্যাপার। ভুটানের সঙ্গে কথাবার্তাও প্রধানমন্ত্রীই বলেন। রাষ্ট্রপুঞ্জে বাঁধাধরা ভাষণ দিতে পাঠিয়েছেন সুষমাকে। যে অধিবেশনে কোনও রাষ্ট্রপ্রধান নেই, সেখানে নিজে কী করেই বা যান!‌ সোজা লাহোরে তৎকালীন পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানাতে গিয়েছিলেন। বিদেশমন্ত্রী জানতেনই না। প্রতিরক্ষামন্ত্রীরও একই অবস্থা। রাফাল চুক্তি নিয়ে লোকসভায় বলার নির্দেশ দেওয়া হল সীতারামনকে। বিস্তারিত জানা না থাকায় মুশকিলে পড়লেন। বালাকোটে বায়ুসেনা অভিযানের কথা জানতেন ৭ জন, সরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে। তালিকায় নেই প্রতিরক্ষামন্ত্রী!‌ টেলিভিশনে দেখে প্রথম জেনেছেন আমাদের মতোই। সেনাকর্তারা কথা বলেন শুধুই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে। এবং অবশ্যই অজিত ডোভাল থাকেন, নির্মলা সীতারামন নেই। পদ দিয়েছেন, দায়িত্ব বা অধিকার দেননি। মহিলাদের গুরুত্ব!‌

জনপ্রিয়

Back To Top