এইচ ডি কুমারস্বামী সরকারকে ফেলে কর্ণাটক দখল করল বিজেপি। মুখ্যমন্ত্রী ইয়েদুরাপ্পা, যিনি আগেও ছিলেন, চার দফায়, একবারও মেয়াদ শেষ করতে পারেননি। এবার মুখ্যমন্ত্রী হয়েই প্রথম কী সিদ্ধান্ত তাঁর, রাজ্য সরকারের?‌ সাধারণত, কোনও বড় চমকপ্রদ জনকল্যাণমূলক ঘোষণা পাওয়া যায়। রাজ্যবাসী অপেক্ষা করেন। ইয়েদুরাপ্পা কী জানালেন?‌ টিপু সুলতানের জন্মদিনের উৎসব তাঁরা বাতিল করছেন। ২০১৫ সালে কংগ্রেস সরকার, মুখ্যমন্ত্রী তখন সিদ্দারামাইয়া, সিদ্ধান্ত নেয় প্রতি বছর টিপুর জন্মদিন পালন করবে সরকার। কুমারস্বামী সরকারও তা চালু রাখার কথা বলেছিলেন। ইয়েদুরাপ্পা উল্টে দিলেন, পাল্টে দিলেন। ঘোষণায় বার্তা, ‘‌সাম্প্রদায়িক’‌ টিপু সুলতানের জন্মোৎসব পালন করা হবে না। ওঁরা যে টিপুর কাহিনি জানেন না, তা নয়। নিজেদের ‘‌সাম্প্রদায়িক’‌ দৃষ্টিভঙ্গি ও উদ্দেশ্যেই অনুষ্ঠান বাতিল। টিপু কে, তিনি কী করেছিলেন, ইতিহাসে নথিবদ্ধ। মহীশূর–‌রাজ হিসেবে তিনি কয়েকটি মন্দির ধ্বংস করার নির্দেশ দিয়েছিলেন, বিজেপি–‌পন্থীদের ব্যাখ্যা। বিশিষ্ট ইতিহাসবিদরা গবেষণা করে জানিয়ে দিয়েছেন, ভুল। তাঁর সময়ে তিন–‌চারটি মন্দির ধ্বংস করেছিল কিছু লোক। টিপু সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেন। মন্দির সারিয়ে দেন। অন্য দিকগুলোও দেখুন। সেই তখন, স্বাস্থ্য ও বাণিজ্যে মহীশূরকে উন্নত করেছিলেন বিশেষ উদ্যোগ নিয়ে, শিল্পক্ষেত্রেও অনেক উদ্যোগ, যা ইতিহাসবিদদের প্রশংসা পেয়েছে। আরও একটা পরিচয়। ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে মরণপণ লড়াই। মসলিপত্তনমকে ঘাঁটি বানিয়ে প্রবল যুদ্ধ। কর্ণাটকবাসীরা মনে করেন, তিনিই দেশের প্রথম স্বাধীনতা যোদ্ধা। কোনও সংশয় নেই, তাঁর ব্রিটিশ বিরোধিতা ছিল আপসহীন। বিজেপি সরকার সেই স্বীকৃতি দিতে নারাজ। ওরা দেশপ্রেমিক?

জনপ্রিয়

Back To Top