সুকুমার রায়ের ‘‌আবোলতাবোল’‌ ভয়ঙ্কর নয়। বিপজ্জনক নয়। হাসির সঙ্গে, গভীরে সত্য। বিশ্বসাহিত্যে অমর সৃষ্টি। কিন্তু, সমাজে, দেশে অন্য আবোলতাবোল আছে। গোমূত্র খেলে ভাইরাস কিছু করতে পারবে না, ২০ মিনিট রোদে দাঁড়ালেই নিরাপদ, এমন কথাগুলোকে আবোলতাবোল বলা যায়, যা বিপজ্জনক। স্যানিটাইজার খেলে ভাইরাস ধ্বংস হবে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আবোলতাবোল শুনেছি। করতে গিয়ে ৩০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে। বলতে চাইছি, আমাদের রাজ্যের এক নেতার ভয়ঙ্কর আবোলতাবোলের কথা। ১০ মে, রবিবার বিজেপি–‌র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বললেন, ‘‌মুখ্যমন্ত্রীকে দেখতে পাচ্ছি না কেন?‌ তিনি কি কোয়ারেন্টিনে আছেন?‌’‌ দিলীপবাবুকে মনে করিয়ে দেওয়ার জন্য কয়েকটা কথা। অবশ্য, তিনি ভুলে যাননি, ইচ্ছা করে কুকথা বলছেন। করোনা সঙ্কটের শুরুতেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি কিছু কাজ করেছেন। এখনও করছেন অক্লান্তভাবে, কিন্তু শুরুতেই যা করেছিলেন, বলছি। বাজারে গেছেন, যাতে সামাজিক দূরত্ব মেনে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে কেনাকাটা হয়। পোস্তায় গেছেন, পাইকারি বাজার থেকে জোগান অব্যাহত রাখার জন্য। হাসপাতালে গেছেন, ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মীদের উদ্দীপ্ত করার জন্য। বৈঠক করেছেন নানা ক্ষেত্রের মানুষদের সঙ্গে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে। ভিডিও কনফারেন্স করেছেন জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারদের সঙ্গে। সর্বদলীয় বৈঠক করেছেন। সাংবাদিক বৈঠক করেছেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে। মানুষকে বুঝিয়েছেন, কীভাবে বারবার হাত ধুতে হবে। কীভাবে বাড়িতে তৈরি মাস্ক পরা যায়। তারপর থেকে, নিয়মিত বৈঠক করছেন, প্রশাসনের দায়িত্বপ্রাপ্তদের সঙ্গে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে। কী চান বিরোধীরা, রোজ দেখা দেবেন মুখ্যমন্ত্রী?‌ ১০ মে বলেছেন দিলীপ ঘোষ। ঘটনা, ৯ মে দূরত্ব মেনে, রবীন্দ্রনাথের মূর্তিতে মালা দিয়েছেন জন্মদিবসে। ভয়ঙ্কর আবোলতাবোল বন্ধ করুন বিষাক্ত নেতারা।  ‌

জনপ্রিয়

Back To Top