মোবাইল ফোন উপকারী জিনিস। উপকারী মানে কী?‌ প্রয়োজনীয়। যখন ছিল না তখন ছিল না, হাতে আসার পর এখন আমরা সেলফোন–‌হীন জীবনের কথা ভাবতেই পারি না। বিপদে–‌আপদে, কাজের সূত্রে, কারও কাছে খবর পৌঁছে দেওয়ার জন্য বা কারও খবর পাওয়ার জন্য মোবাইল ফোন নিত্যদিনের সঙ্গী। তবে, সব ভালর মধ্যেই খারাপের বিন্দু থেকে যায়। এবং সেই বিন্দুর মাপ বাড়তে বাড়তে একসময়ে বড়সড় সমস্যা হয়ে দেখা দেয়। কত মানুষ কত সময়ের অপচয় যে করেন মোবাইল ফোন হাতে–‌কানে, হিসেবের বাইরে। কেউ কেউ জাগ্রত অবস্থায় অর্ধেক সময় কাটিয়ে দেন এতে। কত কাজ করা হয় না। পারিবারিক জীবনে বিচ্ছিরি ব্যাঘাত। স্বামী–‌স্ত্রীর কথায় ব্যাঘাত, সন্তানদের সঙ্গে সময় কাটানোয় ব্যাঘাত। পারিবারিক ও সামাজিক জীবনে কার্যত আততায়ী হয়ে দেখা দিয়েছে মুঠো–‌ফোন। ফোনে কথা বলতে বলতে রেললাইন পার হতে গিয়ে মৃত্যু হল কতজনের। মর্মান্তিক খবর পড়েও অনেকের অভ্যেস যায় না। আর ওই সেলফি–‌রোগ। নিজেকে দেখানোর ভয়ঙ্কর আনন্দ। ট্রেনে ঝুলতে–‌ঝুলতেও, চলন্ত ট্রেনের সামনে দাঁড়িয়েও!‌ মুর্শিদাবাদের দৌলতাবাদে শোচনীয় বাস দুর্ঘটনার তদন্তে প্রাথমিকভাবে জানা যাচ্ছে, বাসচালক হয়তো সেই মুহূর্তে মোবাইল ফোনে কথা বলছিলেন। ফোন–‌রোগে জীবন হারানো গভীর দুঃখজনক। কিন্তু এক্ষেত্রে তো এত মানুষের মৃত্যু ঘটল। ইচ্ছাকৃত নয়, কিন্তু ঘাতকই তো বলতে হবে। কাকভোরে কথা কীসের?‌ কার সঙ্গে?‌ কেনই বা?‌ যাঁর দায়িত্ব ৫৬ জন যাত্রীকে নিরাপদে নিয়ে যাওয়া,  তাঁর এক হাতে স্টিয়ারিং, অন্য হাতে ফোন!‌ যাতে এমন আর না হয়, কড়া নিয়ম করার পক্ষে যাচ্ছে রাজ্য সরকার। দেখা যাক, অসুখ যদি একটু সারে।‌

জনপ্রিয়

Back To Top