করণ সিংয়ের বক্তব্য নিয়ে উল্লসিত বিজেপি। তিনি ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার পক্ষে মত দিয়েছেন। করণ সিং দীর্ঘ সময় কংগ্রেসের সাংসদ ছিলেন। কিন্তু ভিন্ন পরিচয় বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তিনি কাশ্মীরের শেষ ‘‌সদর–ই–রিয়াসত’‌। তাঁর বাবা হরি সিং রাজা হিসেবে কাশ্মীরের ভারতভুক্তি চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। সেই চুক্তিতে ৩৭০ ধারার কথা ছিল, স্পষ্ট ভাষায়। বিদ্বান করণ সিং কখনও এই ধারা তুলে দেওয়ার পক্ষে সওয়াল করেননি। কাশ্মীরের নিজস্বতা ও বিশেষ মর্যাদার পক্ষেই থেকেছেন। এখন যদি তাঁর মত অন্যরকম হয়ে থাকে, হতেই পারে। শুধু তো করণ সিং নন, এবার ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন বেশ কয়েকজন কংগ্রেস নেতা। প্রবীণ জনার্দন দ্বিবেদী তাঁদের একজন। ভুবনেশ্বর কলিতা রাজ্যসভা থেকে পদত্যাগ করে বিজেপি–তে যোগ দিয়েছেন। নতুন দল তাঁকে ফের রাজ্যসভায় পাঠাচ্ছে। বিস্ময়কর, যাঁরা রাহুল গান্ধীর ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত, রাহুল–বাহিনী বলা যায়, সেই জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, মিলিন্দ দেওরা, জিতিন প্রসাদরা প্রকাশ্য বিবৃতি দিয়েছেন কংগ্রেসের অবস্থানের বিরুদ্ধে, অমিত শাহর বিলের পক্ষে। কাশ্মীরের শেষ রাজার পুত্র করণ সিংয়ের বক্তব্য নিশ্চয় গুরুত্বপূর্ণ। ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারে সায় দেওয়া ছাড়াও কিন্তু আরও দুটো কথা বলেছেন। এক, কাশ্মীরের বিরোধী দলগুলোকে মর্যাদা দেওয়া উচিত, মেহবুবা মুফতি, ওমর আবদুল্লাকে গ্রেপ্তার করা অন্যায়। গণতন্ত্র চাই। দুই, জম্মু–কাশ্মীরকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার সিদ্ধান্ত ভুল। পূর্ণ রাজ্য হিসেবে মর্যাদা ফিরিয়ে দিতে হবে। এই দুটো কথা চেপে যাচ্ছে শাসক দল।‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top