আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দেশবাসীকে ডিজিটাল লেনদেনে উৎসাহ দিতে এবার বড় সিদ্ধান্ত নিল স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া। গত মাসেই আরটিজিএস এবং এনইএফটি পরিষেবায় চার্জ প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করেছিল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। তার এক মাসের মধ্যেই এসবিআই জানাল, ‌এবার থেকে এনইএফটি এবং আরটিজিএস–এর মাধ্যমে অনলাইনে টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে ফি তুলে দেওয়া হল। ১ জুলাই থেকে গ্রাহকদের এই সুবিধা দেওয়া শুরু করেছে এসবিআই। এলাহাবাদ ব্যাঙ্কও এ মাসের শুরু থেকে আরটিজিএস এবং এনইএফটি চার্জ নেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। তবে ১ অগস্ট থেকে আইএমপিএস–এর মাধ্যমে তাৎক্ষণিক টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রেও আর ফি নেবে না এসবিআই। শুধুমাত্র আরটিজিএস এবং এনইএফটি পরিষেবার ক্ষেত্রেই নয়, মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ইমিডিয়েট পেমেন্ট সার্ভিস বা আইএমপিএস পরিষেবা ব্যবহারের ক্ষেত্রেও ১ অগস্ট থেকে চার্জ নেওয়া বন্ধ করবে দেশের বৃহত্তম ব্যাঙ্কটি। শুক্রবার এক বিবৃতিতে এই ঘোষণা করল এসবিআই। 
দেশের মোট ব্যাঙ্কিং ব্যবসার ২৫ শতাংশ রয়েছে এসবিআই–এর হাতে। রিয়েল–টাইম গ্রস সেটলমেন্ট বা আরটিজিএস ব্যবস্থায় মোটা অঙ্কের অর্থ তাৎক্ষণিক পাঠানো হয়ে থাকে। অন্যদিকে, ন্যাশনাল ইলেকট্রিনক ফান্ড ট্রান্সফার বা এনইএফটি ব্যবস্থায় ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত পাঠানো যায় এবং এক ব্যাঙ্ক থেকে অন্য ব্যাঙ্কে এক ঘণ্টা বাদ বাদ এই টাকা পাঠানো হয়। ‘‌বৈদ্যুতিন উপায়ে টাকা পাঠানোর প্রক্রিয়া জনপ্রিয় করে তুলতে ইয়োনো, ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং এবং মোবাইল ব্যাঙ্কিং গ্রাহকদের আরটিজিএস এবং এনইএফটি চার্জ ১ জুলাই থেকে তুলে দেওয়া হচ্ছে। শুধু তাই নয়, ১ আগস্ট থেকে আইএমপিএস চার্জও তুলে দেওয়া হবে,’‌ ওই বিবৃতিতে জানিয়েছে এসবিআই। 
এই মুহূর্তে ১০০১–১০,০০০ টাকা পর্যন্ত লেনদেনের ক্ষেত্রে ১ টাকা এবং সেই সঙ্গে পণ্য পরিষেবা কর বা জিএসটি দিতে হয় এসবিআই গ্রাহকদের। ১০০০১–১০০,০০০ টাকা পর্যন্ত দিতে হয় ২ টাকা ও জিএসটি। ৩ টাকার এবং সেই সঙ্গে জিএসটি দিতে হয় এক লক্ষ এক টাকা থেকে দু’ লক্ষ টাকা পর্যন্ত। এ বছর ৩১ মার্চ পর্যন্ত এসবিআইয়ের অনলাইন পরিষেবার মোট গ্রাহকসংখ্যা ছিল ছ’কোটির বেশি। অন্যদিকে, এক কোটি ৪১ লক্ষ গ্রাহক তাঁদের মোবাইল ব্যাঙ্কিং পরিষেবা পান। নয়া নিয়মে গ্রাহক সংখ্যা আরও বাড়বে এবং অনেকেই অনলাইন লেনদেনে উৎসাহিত হবে, এমনটাই মনে করছে এসবিআই কর্তৃপক্ষ।

জনপ্রিয়

Back To Top