আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ফের মুদ্রাস্ফীতির ভ্রুকুটি অর্থনীতিতে। গত মাসে নিত্য প্রয়োজনীয় পাইকারি পণ্যে ৪.‌৮৭ শতাংশ থেকে পাঁচ শতাংশ বেড়েছে মুদ্রাস্ফীতি। গত পাঁচ মাসে যা রেকর্ড। বৃহস্পতিবার এই তথ্যই উঠে দিয়েছেন অর্থনীতিবিদরা। পাইকারি পণ্যে বার্ষিক মুদ্রাস্ফীতি ৫.‌৩০ শতাংশ বাড়ার ইঙ্গিতও দিয়েছেন তাঁরা। আরবিআই ৪ শতাংশ মুদ্রাস্ফীতির লক্ষ্যমাত্রা দিযেছিল। তা জুন মাসেই ছাড়িয়ে গিয়েছে।  বৃহস্পতিবারের এই তথ্য বলছে, অগাস্টেই আরবিআই–এ মূল সূদের হার বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

গত মাসেই কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক ২৫ বেসিস পয়েন্ট রেপো রেট বাড়িয়েছিল। 
গত মে মাসে খাদ্যদ্রব্যে মুদ্রাস্ফীতি ৩.‌৩৭ শতাংশ থেকে কমে হয়েছিল ৩.‌১৮ শতাংশ। অর্থনীতিবিদদের কথায়, আবহাওয়ার কারণে ফল, সব্‌জির মতো খাদ্যদ্রব্যের যোগা, সরবরাহে তারতম্যের ফলেই এই স্থিতি তৈরি হয়েছে। তবে বর্ষা ঠিকমতো হলে চাষে তা সহায়ক হবে। তাহলে কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসতে পারে মুদ্রাস্ফীতি বলে মনে করছেন তাঁরা। 
নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য ছাড়া জ্বালানি এবং অন্যান্য হাল্কা শিল্পের ক্ষেত্রে মুদ্রাস্ফীতি মে মাসে ছিল ৬.‌৮৪ শতাংশ।

জুনে তা হয়েছে ৭.‌১৪ শতাংশ। অপরিশোধিত তেলের দাম আন্তর্জাতিক বাজারে বৃহস্পতিবার এক মার্কিন ডলার বেড়েছে। মে মাসেই অপরিশোধিত তেলের দাম ছিল ব্যারেল পিছু ৮০ মার্কিন ডলার। এই বছরে প্রায় ২০ শতাংশ বেড়েছে তেলের দাম। ভারী শিল্পে বৃদ্ধি আগের মাসে ছিল ৪.‌৯ শতাংশ। মে মাসে তা কমে হয়েছে ৩.‌২ শতাংশ। নির্মাণ শিল্পে বৃদ্ধি আগের মাসে ছিল ৪ শতাংশ। এখন তা নেমে গিয়েছে ২ শতাংশ। বৃহস্পতিবার বাজার বন্ধের সময় ডলার প্রতি টাকার দাম ছিল ৬৮.‌৫৭ টাকা। গত বছরের থেকে যা এখনও পর্যন্ত ৭ শতাংশ কম।               

জনপ্রিয়

Back To Top