আজকাল ওয়েবডেস্ক: আপাতত ৪ শতাংশই থাকছে‌ রেপো রেট। মন্দার বাজারে রেপো রেট অপরিবর্তিত রাখার সিদ্ধান্ত নিল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার মানিটারি পলিসি কমিটি (‌এমপিসি)‌। বৃহস্পতিবার ভিডিও কনফারেন্সে সেকথা জানিয়ে দিলেন আরবিআই–এর গভর্নর শক্তিকান্ত দাস। রিভার্স রেপো রেট থাকছে ৩.‌৩ শতাংশ। 
গত তিন দিন ধরে এই নিয়ে বৈঠকে বসেছেন এমপিসি–র ছ’‌জন সদস্য। তার পরেই এই সিদ্ধান্ত। দাস আরও জানিয়েছেন, মানিটরি পলিসির কমিটির ধারণা জুলাই–সেপ্টেম্বরে মুদ্রাস্ফীতি ওপরের দিকেই থাকবে। এই অর্থবর্ষের দ্বিতীয় ভাগে মুদ্রাস্ফীতি কিছুটা হলেও কমবে। এই সবের নেপথ্যে যে করোনা সংক্রমণ, তা আর নতুন করা বলার দরকার নেই।
ভিডিও কনফারেন্সে দাস সাংবাদিকদের জানালেন, বৃদ্ধি বজায় রাখতে, করোনার থাবা থেকে অর্থনীতিকে বাঁচাতে, সর্বোপরি মুদ্রস্ফীতিকে লক্ষ্যমাত্রার মধ্যে বেঁধে ফেলতে এভাবেই আর্থিক ক্ষেত্রে সুদের হার নিয়ন্ত্রণে রাখা হবে। আরও পদক্ষেপ করা হবে। করোনা মোকাবিলায় ফেব্রুয়ারি থেকে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক ইতিমধ্যেই ১১৫ বেসিস পয়েন্ট কমিয়েছে রেপো রেট। অর্থনীতিবিদরা মনে করেছিলেন, রেপো রেট আরও ২৫ বেসিস পয়েন্ট নামাবে আরবিআই। সে রকম হলে মূল্যবৃদ্ধি আরও বাড়ত। যদিও স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার সমীক্ষা রিপোর্ট বলেছিল, আরবিআই রেপো রেট অপরিবর্তিতই রাখবে। 
এদিন আরও কিছু ঘোষণা করেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া। সোনা জমা রেখে ঋণের নীতিতে কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। এতদিন জমা রাখা সোনার মোট মূল্যের ৭৫ শতাংশ পর্যন্ত ঋণ পাওয়া যেত। নতুন নীতিতে সেই হার বেড়ে হল ৯০ শতাংশ। অর্থাৎ এখন জমা রাখা সোনার মূল্যের ৯০ শতাংশ পর্যন্ত ঋণ নিতে পারবেন গ্রাহকরা। ন্যাশনাল হাউজিং ব্যাঙ্ক বা এনএইচবি এবং নাবার্ডকে ১০ হাজার কোটি টাকা অতিরিক্ত নগদ দেবে রিজার্ভ ব্যঙ্ক। করোনার আবহে অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতেই এ ধরনের সিদ্ধান্ত বলে জানালেন দাস। ব্যাঙ্কগুলোকে ঋণনীতি পরিবর্তনের ক্ষেত্রেও কিছুটা ছাড় দেওয়া হয়েছে।  

জনপ্রিয়

Back To Top