আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ এই নিয়ে টানা পাঁচ মাস। এপ্রিলেও রেপো রেট এবং রিভার্স রেপো রেট অপরিবর্তিত রাখার সিদ্ধান্ত নিল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া। অতিমারীর দ্বিতীয় ঢেউয়ের জেরে স্তব্ধ হয়ে যেতে পারে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার, এই আশঙ্কায় চলতি মাসের আর্থিক নীতি নির্ধারণ কমিটির বৈঠকের পর এই ঘোষণা করলেন গভর্নর শক্তিকান্ত দাস। অর্থাৎ বর্তমানে রেপো রেটের হার ৪% এবং রিভার্স রেপো রেট দাঁড়িয়ে ৩.‌৩৫ শতাংশে।
বাণিজ্যিক ব্যাঙ্কগুলি যে সুদের হারে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের থেকে ধার পায়, তাই হল রেপো রেট। অন্যদিকে যে সুদের হারে বাণিজ্যির ব্যাঙ্কের থেকে ধার নেয় শীর্ষ ব্যাঙ্ক, তা হল রিভার্স রেপো রেট। দৈনিক সংক্রমণ ইতিমধ্যেই লক্ষের গণ্ডি ছাড়িয়েছে। এই পরিস্থিতিতে ফের আঞ্চলিক লকডাউনের পথে হাঁটছে রাজ্যগুলি। যার জেরে বাধা পেতে পারে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড। বাজারের নগদের জোগান জিইয়ে রাখতে এবং মূল্যবৃদ্ধির হার নিয়ন্ত্রণে রাখতে রেপো রেট এবং রিভার্স রেপো রেট অপরিবর্তিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক, মনে করা হচ্ছে। 
দৈনিক সংক্রমণ বৃদ্ধির অর্থনৈতিক বৃদ্ধিতে অনিশ্চয়তা তৈরি হলেও রিজার্ভ ব্যাঙ্ক জানাচ্ছে, চলতি অর্থ বর্ষে দেশে আর্থিক বৃদ্ধির হার দাঁড়াতে পারে ১০.‌৫ শতাংশে। গত নীতি নির্ধারণ কমিটির বৈঠকেও একই পূর্বাভাস দিয়েছিল শীর্ষ ব্যাঙ্ক। আরবিআই–এর বক্তব্য, বাজারে চাহিদা বৃদ্ধি নিয়ে উৎপাদন, পরিষেবা এবং পরিকাঠামো ক্ষেত্র আশাবাদী হলেও ফের দৈনিক সংক্রমণ বৃদ্ধির জেরে আস্থা হারাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। 

Back To Top