আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ মেয়াদি ঋণ পরিশোধের সময়সীমা ফের তিন মাস পেছনোর পক্ষে অনুমোদন দিল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া। পাশাপাশি বাজারে নগদের জোগান এবং চাহিদা বাড়াতে রেপো রেট ও রিভার্স রেপো রেট কম করারও সিদ্ধান্ত নিয়েছেন গভর্নর শক্তিকান্ত দাস। শুক্রবার ‘‌মানিটারি পলিসি কমিটি’–র বৈঠকের পর সাংবাদিক বৈঠক করেন তিনি। দেশের অর্থনীতি চাঙ্গা করতে আরও এক দফা ‘‌মানিটারি বুস্ট’ আরবিআই–র পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয় এদিন। রেপো রেট ৪০ বেসিস পয়েন্ট কমিয়ে ৪.‌৪% থেকে ৪% করা হয়। পাশাপাশি রিভার্স রেপো রেটও ৪০ বেসিস পয়েন্ট কমিয়ে ‌৩.‌৭৫% থেকে ‌৩.‌৩৫% করা হয়। আরবিআই–র বক্তব্য, রেপো রেট কম করার ফলে ব্যাঙ্কগুলি আরবিআই থেকে বেশি ঋণ নেবে। ফলে ব্যাঙ্কগুলির হাতে নগদ অর্থ বাড়বে এবং সেই অর্থ তারা কোনও ব্যবসায়িক সংস্থাকে ঋণ হিসাবে দিতে আরও আগ্রহী হবে। পাশাপাশি রিভার্স রেপো কম করার মানেই ব্যাঙ্কগুলি আরবিআই–র কাছে টাকা মজুত রাখার কথা ভাববে না। পরিবর্তে ছোট–মাঝারি শিল্পকে সেই অর্থ ঋণ হিসেবে দেবে। লকডাউনে গত দু’‌মাস ধরে দেশের উৎপাদনশিল্পগুলি মার খেয়েছে। কারখানায় তালা ঝুলছে। ছোট–মাঝারি কোম্পানিগুলি প্রবল অর্থসঙ্কটে ভুগছে। এদিকে পাল্লা দিয়ে কমেছে অভ্যন্তরীন চাহিদা। মার্চে মূলধনী পণ্যের চাহিদা কমেছে প্রায় ২৭%। সরকারের আয়ের পথগুলিও ক্রমে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। ফলে চলতি অর্থবর্ষে দেশের আর্থিক বৃদ্ধির হার ঋণাত্মক হবে, জানান গভর্নর শক্তিকান্ত দাস। রপ্তানি কারবারের সঙ্গে যুক্ত সংস্থাগুলিকে আরও সুযোগ করে দিতে আমদানি–রপ্তানি ব্যাঙ্কের জন্য ১৫ হাজার কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করল এদিন আরবিআই। শীর্ষ ব্যাঙ্কের বক্তব্য, চলতি বছরের তৃতীয় ও চতুর্থ ত্রৈমাসিকে মুদ্রাস্ফীতি ৪%–র নিচে নেমে যাবে।  
সম্প্রতি আত্মনির্ভর ভারত প্রকল্পের আওতায় ২০.‌৯৭ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছে কেন্দ্রের মোদি সরকার। বিশেষজ্ঞ মহলের দাবি ছিল, বড় অঙ্কের প্যাকেজ হলেও স্বল্পমেয়াদে বাজারে চাহিদা ও নগদের জোগান বাড়বে না। বাজার ফের চাঙ্গা হয়ে উঠতে মাস ছ’‌য়েক সময় লাগবে। তারপরই ফের আরও এক দফা বড় ঘোষণা আরবিআই–র পক্ষ থেকে। 

জনপ্রিয়

Back To Top