পিটিআই, দিল্লি, ১ জুন- কিছু ক্ষেত্রে শিথিল করা গেলেও লকডাউন বাড়ানো হয়েছে আরও এক মাস। দেশের অর্থনীতিতে এর ফল হবে গুরুতর। চলতি অর্থবর্ষে জিডিপি–‌তে সঙ্কোচন ঘটবে ২ শতাংশের মতো। ব্যাঙ্ক অফ আমেরিকা সিকিউরিটিজ–‌এর পূর্বাভাস সেরকমই। শেয়ার কারবারের নামী বিদেশি সংস্থাটির হিসেবে, লকডাউন চলবে জুনের পরও, জুলাইয়ের মাঝামাঝি পর্যন্ত। আর সারা দেশে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড শুরু হতে হতে আগস্ট।
২০২০–‌২১ অর্থবর্ষে আর্থিক সঙ্কোচন ঘটবে, সেটা রিজার্ভ ব্যাঙ্কও বলছে। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার বিশ্লেষণ, ৫ শতাংশ পর্যন্ত হতে পারে। ব্যাঙ্ক অফ আমেরিকা সিকিউরিটিজ‌ও মনে করে, কোভিডের কোনও ভ্যাকসিন না বেরোলে আংশিক লকডাউন বাড়াতে পারে ভারত সরকার। সেক্ষেত্রে সঙ্কোচন ৫ শতাংশ পর্যন্ত হতে পারে। সরকার কিছু কিছু ক্ষেত্রে ছাড় দিয়েছে। কিন্তু অর্থনীতির ৬০ শতাংশ এলাকাই এখনও লকডাউনের খপ্পরে। রিপোর্টে বলা হযেছে, ‘‌আমাদের হিসেব অনুযায়ী ১ মাসের স্লো ডাউনের মূল্য হতে পারে জিডিপি–‌র ১–‌২ শতাংশ পয়েন্ট। অর্থনীতিকে চালু করতে ৬ সপ্তাহ সময় লাগা মানে ০.‌৬ শতাংশ খোয়ানো।’‌ 
গত অর্থবর্ষের আর্থিক ঘাটতি সংশোধিত অঙ্ককেও ছাড়িয়ে গেছে বিরাটভাবে। লক্ষ্য ছিল ৩.‌৩ শতাংশ, এবারের বাজেট পেশের সময় তা সংশোধন করে ৩.‌৮ শতাংশ করেছিলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। বছরশেষের হিসেব আসার পর দেখা গেল তা দাঁড়িয়েছে ৪.‌৬ শতাংশ। করোনা মহামারী আসার আগেই এই অবস্থা। ব্যাঙ্ক অফ আমেরিকা সিকিউরিটিজ–‌এর পূর্বাভাস বলছে, কর আদায় কমে যাওয়ায় চলতি অর্থবর্ষের শেষে এই ঘাটতি বেড়ে ৬.‌৩ শতাংশে পৌঁছে যেতে পারে।

জনপ্রিয়

Back To Top